মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ঈশ্বরদীতে উপনির্বাচনের সভায় বিএনপির দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ১৫ ‘উপনির্বাচনে কারচুপি হলে ঈশ্বরদী থেকেই সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হবে’- আমান উল্লাহ পাবনা-৪ উপ-নির্বাচনের প্রচারণায় উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি, করোনা সংক্রমণের আশংকা পাবনা-৪ উপনির্বাচন-আসন ধরে রাখতে মরিয়া আ’লীগ, পুনরুদ্ধারের চেষ্টায় বিএনপি ভাঙ্গুড়ায় বৃক্ষ বিতরণ ও রোপণ করল ‘মানবিক ভাঙ্গুড়া’ পাবনা-নাজিরগঞ্জ সড়কের বেহলা অবস্থা, দুর্ভোগ চরমে পাবনায় ‘অঙকুর সমাজ সেবা সংঘ’র বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচী পাবনার সৌমিক পরিবহনে মাদক, বগুড়ায় চালকসহ আটক ৬ হান্ডিয়ালের চাঞ্চল্যকর হাবিব হত্যার আসামীকে সিলেট থেকে গ্রেফতার আমিনপুরে ডিঙ্গি নৌকা বাইচের চুড়ান্ত খেলা অনুষ্ঠিত

করোনাকালে চিকিৎসক বাবা-মেয়ের মানবিকতার দৃষ্টান্ত

পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডেস্ক
  • প্রকাশিত শুক্রবার, ১২ জুন, ২০২০
Pabnamail24

করোনাকালে হাত গুটিয়ে বসে থাকা নয় বরং জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের পাশে থেকেছেন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান। মহান এ কাজটি করতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়। তার মেয়ে ডা. এশাও বাবার আদর্শের পথ ধরেই পাশে দাঁড়িয়েছেন চিকিৎসাপ্রত্যাশীদের। তিনিও ঝুঁকির মুখে পড়ে এখন কোয়ারেন্টাইনে। কিন্তু তারা এজন্য চিন্তিত নন বরং সুস্থ হয়ে আবার রোগীদের পাশে দাঁড়াতে চান।

বলছিলাম পাবনার ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ও তার মেয়ে ডা. মায়িদা ফাহমিদা এশার কথা। ডা. মোস্তাফিজুর রহমান পাবনা সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, তার মেয়ে ডা. এশা ঢাকার হলিক্রস মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত।

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সেক্রেটারি ডা. আকসাদ আল মাসুম জানান, ডা. মোস্তাফিজ করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই পাবনা সদর উপজেলায় গঠিত মেডিকেল টিমের নেতৃত্ব তুলে নেন। করোনাকালে শুধু নির্দেশনা নয়, করোনা উপসর্গ নিয়ে সাহায্য প্রার্থী মানুষের পাশে বন্ধুজন হিসেবে কাজ করে যাচ্ছিলেন। আক্রান্তদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নমুনা সংগ্রহ, চিকিৎসার ব্যবস্থা, বাড়ি লকডাউন করা সব কজেই তিনি ছিলেন অগ্রগ্রামী। নিজের জন্য, পরিবারের জন্য ঝুঁকি জেনেও পিছপা হননি।
এমনকি তিনি ঈদের দিন (২৫ মে) রোগাক্রান্ত বৃদ্ধ বাবাকে হারিয়েছেন চিরতরে। তারপরও শোককে শক্তিতে পরিণত করে দায়িত্বে অবিচল থেকেছেন। নানামুখী সতর্কতা অবলম্বন করার পরও অদৃশ্য শত্রু করোনাভাইরাস প্রবেশ করে তার শরীরে। জ্বর ও ঠান্ডার উপসর্গ দেখা দেয়। গত সপ্তাহে আইসোলেশনে চলে যান ডা. মোস্তাফিজ। রোববার (৭ জুন) রাতে তার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

তবে ডা. মোস্তাফিজ মানসিকভাবে ভেঙে পড়েননি। উপসর্গ এখন অনেকটাই কমে গেছে। বাড়ি থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি। তিনি মোবাইল ফোনে বলেন, অসুস্থ মানুষ রোগমুক্তির জন্য স্রষ্টার পরেই নির্ভর করেন চিকিৎসকের ওপর। তাই মানবিকতার প্রত্যয় নিয়ে চেষ্টা করেছি মানুষের পাশে থাকার।

এদিকে ডা. মোস্তাফিজের বড় মেয়ে মায়িশা ফাহমিদা এশা সদ্য এমবিবিএস পাস করেছেন। তিনি সঙ্গীত শিল্পী হিসেবে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন। বলা যায় সেই জাতীয় পুরস্কারের মর্যাদা তিনি রেখেছেন। জাতির দুর্দিনে পিছিয়ে থাকেননি। পিতার আদর্শ ধারণ করে তিনিও ঢাকার হলিক্রস মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল টিম ‘বি ফোর’ এর একজন হয়ে কাজ করছেন। গত ১০ দিন টানা হাসপাতালের করোনা ইউনিটে দায়িত্ব পালন শেষে এখন ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন।

সোমবার (৮ জুন) তারও নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়। রিপোর্ট নেগেটিভ হলে তিনি কোয়ারেন্টাইনের পর আবার কাজে ফিরবেন বলে জানান।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!