শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৫৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
আটঘরিয়ায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর বাড়িতে হামলা, যুবলীগ নেতাসহ আটক ৪ ঘরের মধ্যে র‌্যালী, পাবনায় আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধি দিবস উদযাপনের নামে তামাশা! পাবনায় আর্ন্তজাতিক প্রতিবন্ধি দিবস পালিত ঈশ্বরদীতে গাড়ির ধাক্কায় এক কাজাকিস্তান নাগরিক নিহত ঢালারচরে বিতর্কিত ও চাল চুরির অপরাধসহ নানা অপকর্মে নৌকার মাঝি পরিবর্তন সুজানগরে ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে জখম মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যূত হওয়ার ৬ ঘন্টা পর লাইন সচল, ধীরগতিতে উদ্ধারে ক্ষোভ যাত্রীদের চাটমোহর খাদ্য গুদামে ধান-চাল সংগ্রহ অভিযানের উদ্বোধন ভাঙ্গুড়ায় মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যূত, ঢাকার সাথে উত্তর দক্ষিনের ট্রেন চলাচল বন্ধ পুন্ডুরিয়া উদয়ন সংঘের ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত

পদ্মা নদীতে বালি তোলা নিয়ে গুলাগুলি, ১০ শ্রমিক আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত সোমবার, ২২ নভেম্বর, ২০২১
Pabnamail24

পাবনা-রাজবাড়ি সীমান্ত এলাকার পদ্মা নদীতে বালি তোলাকে কেন্দ্র করে দুর্বৃত্তদের গুলিবর্ষণে ১০ জন বালু কাটা শ্রমিক আহত হয়েছেন। এর মধ্যে একজনের দেহে ৫টি গুলি লাগে। সোমবার (২২ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে রাজবাড়ী থেকে বালু কাটতে গেলে পাবনার সুজানগর উপজেলার নাজিরগঞ্জের থেকে সরকার দলীয় কতিপয় কিছু দুর্বৃত্ত গুলিবর্ষণ করে এবং তাদের আহত করে।

আহতরা হলেন বরিশাল জেলার সেন্টু মোল্লার ছেলে আবু তালেব মোল্লা (৩৫), চাঁদপুর জেলার সিদ্দিক হোসেনের ছেলে মমিন হোসেন (৪২), ময়মনসিংহ জেলার সামছু শেখের ছেলে হাবিব শেখ (৩৪), চাঁদপুর জেলার আলী আহমেদের ছেলে আলী আকবর (৩০) এবং ভোলা জেলার খোরশেদ আলমের ছেলে মোশারফ শেখ (৩৪)। এর মধ্যে আবু তালেবের শরীরের ৫টি গুলি লাগে এবং তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সাইফুর রহমান।

পাবনা-রাজবাড়ি সীমান্ত এলাকার পদ্মা নদীতে বালি তোলাকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। নাজিরগঞ্জ ঘাট এলাকায় নদী থেকে বালি উত্তেলনের মহোৎসব চলছে। এই বালি মহল দখলে নিতেই দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ এই গুলাগুলির ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয় লোকজন নিশ্চিত করেছেন।

রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সাইফুর রহমান বলেন, তার (আবু তালেব) অবস্থা কিছুটা আশঙ্কাজনক থাকলেও ২৪ ঘণ্টা না গেলে কিছু বলা যাচ্ছে না। তাকে আমরা নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখছি। বাকিদের অবস্থা আশঙ্কাজনক নয়। সবারই শরীরেই বেশ আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কারো পায়ের হাড় ভেঙেছে, কারো বুকের পাঁজর। আমরা তাদের চিকিৎসা দিচ্ছি।

আহত শ্রমিকদের নিয়ে আসা আরেক শ্রমিক মাসুদ রানা বলেন, আমরা সকালে বালি কাটতে গেলে হঠাৎ করেই কিছু লোক আমাদের গুলি করে এবং বেধড়ক পেটাতে থাকে। তাদের সেখান থেকে উদ্ধার করে আমরা রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে আসছি।

আরেক শ্রমিক আব্দুল হান্নান জানান, আমরা প্রতিদিনের মতন কাজ করতে গেলে ৫টি ট্রলারে এসে কিছু লোক আমাদের বাল্কহেডে গুলি করে। তারা ড্রেজার মেশিনের লোকদের মারধর করে ড্রেজার মেশিন ও বাল্কহেডটি নিয়ে চলে যায়।

রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহাদত হোসেন বলেন, যেহেতু এটি রাজবাড়ীর সীমানার বাইরের ঘটনা সেহেতু এখানে আমাদের আইনি কোনো পদক্ষেপ নেবার সুযোগ নেই। আমি খবর পেয়ে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে এসেছি। যদি পাবনা জেলা পুলিশ থেকে কোনো ধরনের আইনি সহায়তা চাওয়া হয়, আমাদের পক্ষ থেকে সকল ধরনের সহায়তা দেওয়া হবে।

একই ধরনের কথা বলেন সুজানগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, ঘটনাটি পদ্মা নদীর ভেতর হলেও রাজবাড়ি সীমান্তে ঘটেছে। ঘটনাটি আমার এলাকার নয় বলেও দাবী করেন তিনি। একই সাথে তিনি বিষয়টি না জানার ভানও করেন।

বিষয়টি নিয়ে সুজানগর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিনুজ্জামান শাহিন বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি, তবে আমি ঢাকায় অবস্থানের কারনে বিস্তারিত জানতে পারি নাই। নদীতে যারা বালি তুলছেন তাদেরই একটি চক্র এই কাজ করতে পারেন বলে তিনি ধারনা করেন। তবে নাম ঠিকানা বলেন নাই। তার লোকজন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি কিংবা আমার কোন লোকজন বালি উত্তোলন বা বালি বিক্রির সাথে জড়িত নেই। কারা নদী থেকে বালি তুলছেন একটু খোজ খবর নিলেই পরিষ্কার হতে পারবেন বলেও জানান। তবে তিনি বলেন. নদীর চরের জমি কেটে বিক্রি করছেন ওই চক্র বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!