বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮:২৭ অপরাহ্ন

চিনাখরা স্কুল এন্ড কলেজে অবৈধ নিয়োগের প্রতিবাদ, সভাপতির হাতে লাঞ্ছিত অধ্যক্ষ ও শিক্ষকরা

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০
Pabnamail24

পাবনার চিনাখরা স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে উৎকোচের বিনিময়ে অবৈধ ভাবে শিক্ষক নিয়োগের অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রওশন আলীর তদন্তে বিষয়টি প্রমানিত হয়েছে। অবৈধ নিয়োগ নিয়ে অভিযোগ করায় সম্প্রতি কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও দুলাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান করোনায় কলেজ বন্ধ থাকলেও জরুরী বৈঠকের কথা বলে ডেকে আনেন। সেই বৈঠকে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিদুৎসাহী সদস্য সাইফুল ইসলামকে লাঞ্ছিত করেন। সম্প্রতি ফেসবুকে এ ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

চিনাখরা স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, এই স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি ও দুলাই ইউপি চেয়ারম্যান
সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান ২০১৫ সালের একটি ভূয়া নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখিয়ে কলেজ এপপিও হওয়ার পরে ২০২০ সালের ২রা মে আইসিটি বিষয়ের ১ জন প্রভাষক ও জীব বিজ্ঞান বিষয়ের একজন প্রদর্শক পদে অনৈতিক সুবিধা নিয়ে নিয়োগ প্রদান করেন। বিধি বহির্ভূত এই নিয়োগ বাতল ও বিষয়টি তদন্তের জন্যে শিক্ষাবোর্ডে বিদুৎসাহী সদস্য সাইফুল ইসলাম আবেদন করেন। শিক্ষাবোর্ডের নির্দেশে কলেজ পরিদর্শক হাবিবুর রহমানের পাঠানো পত্রের সুত্র ধরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রওশন আলী বিষয়টি তদন্তে নামেন। অভিযুক্ত সভাপতি ও তৎকালীন অধ্যক্ষের লিখিত জবাবে বিধি বহির্ভূত নিয়োগের বিষয়টি প্রমানীত হয়। এতেই চরম ক্ষিপ হন কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান।

তিনি আরো জানান, এই আওয়ামীলীগ নেতা সব সময় শিক্ষকদের জোরপূর্বক তার অনৈতিক আদেশ পালনে বাধ্য করেন। কথা মতো কাজ না করলেই তার উপরে নেমে আসে অমানবিক নির্যাতন। কলেজের ফান্ড থেকে ইচ্ছে মতো টাকা লুটপাটও করেন তিনি। কিছু বললেই আমাদের উপর চরাও হন। এছাড়াও তিনি জেলা পরিষদের জায়গা দখল করে বহুতল ভবন তৈরী করে ভাড়া দিয়েছেন। ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফুল ইসলামকে স্কুল শাখায় শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দিয়ে তার নেতৃত্বে নিজস্ব পেটোয়া বাহিনীও গঠন করেছেন এই সভাপতি।
অধ্যক্ষ আরো বলেন, এই প্রতিষ্ঠানের সভাপতির অনৈতিক ও স্বেচ্ছাচারী আচরণের সুস্পষ্ট প্রমানাদি রয়েছে।

এদিকে তদন্তে নিয়োগে অনিয়ম ও দূর্নীতির বিষয়ে প্রাথমিক ভাবে প্রমান মিলেছে বলে জানিয়েছেন সুজানগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রওশন আলী। তিনি আরো বলেন, সভাপতির ভয়ে ওই স্কুল এন্ড কলেজের সকল শিক্ষক ভীত সন্ত্রস্থ থাকেন বলেও অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে চিনাখরা স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি ও দুলাই ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান বিষয়টিকে অস্বীকার করেছেন। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় আমি কোন হস্তক্ষেপ করিনি। উৎকোচ নেওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। মারধোরের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটি শিক্ষকদের মধ্যে ভুলবুঝাবুঝির ঘটনা। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা মিথ্য দোষারোপ করে আমাকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!