মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
পাবনা পৌর আ.লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত চাটমোহরে ওষুধ ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে ক্রেতার সাথে অশোভন আচরণের অভিযোগ রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে নির্মাণাধীন চুল্লী থেকে পড়ে ২ শ্রমিক নিহত মুক্তিযোদ্ধা ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়িতে বোমা হামলা, গুলিবির্ষণ, প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ পাবনায় ইয়াবাসহ কথিত ছাত্রলীগ নেতা আটক ভাঙ্গুড়ায় এক কিশোর হত্যাচেষ্টা মামলায় দুইবন্ধু গ্রেপ্তার সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক’র বিরুদ্ধে থানায় মামলা জেলা আ.লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভা, সাবেক এমপি আরজু’র কর্মকান্ডে অসন্তোষ ফরিদপুরে আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে সরকারি সাব-মারসিবল বিক্রির অভিযোগ সাবেক এমপি আরজুর বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা ইউপি চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকীর অভিযোগ

পাবনায় স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড, লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
Pabnamail24

পাবনার সাঁথিয়ায় দুই সন্তানের জননী তাজরিন খাতুন (২৮) কে শ^াসরোধ করে হত্যা ও আগুন দিয়ে পুড়িয়ে লাশ বিকৃত করার দায়ে স্বামী আলমগীর হোসেন (৪০) কে মৃত্যুদন্ড ও ১ লাখ টাকা জরিমানার রায় দিয়েছেন নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ওয়ালিউল ইসলাম। মৃত্যুদন্ড আলমগীর হোসেন সাঁথিয়া উপজেলার বাউশগাড়ি গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে। রোববার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ওয়ালিউল ইসলাম এই রায় প্রদান করেন।

আদালত সুত্রে জানা যায়, গত ২০১৬ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর তারিখে যৌতুকের দাবীকৃত টাকা না পাওয়ায় রাতে আলমগীর তার স্ত্রী তাজরিনকে শ^াসরোধ করে হত্যার পর কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে তার চেহারা বিকৃতি করে দেয়। পরে তাজরিনের সন্তানদের কাছে খবর পেয়ে ভাই সবুজ হোসেন সাঁথিয়া থানায় খবর দেন এবং লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের ব্যবস্থা করেন।

১৮ সেপ্টেম্বর নিহতের ভাই সবুজ হোসেন বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় ৮ জন নামীয় আসামী দিয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্ত শেষে আসামী আলমগীরকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। আদালত দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষ্য প্রমান শেষে রোববার দুপুরে স্বামী আলমগীরকে মৃত্যুদন্ড এবং আরো ১ লাখ টাকা জরিমানা করেন। এসময় অন্য আসামীদের বেকুসুর খালাস প্রদান করেন।

রায়ের সময় সরকার পক্ষের আইনজীবি শিশু ও নারী নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে পিপি অ্যাডভোকেট খন্দকার আব্দুর রকিব এবং আসামী পক্ষের আইনজীবি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বাচ্চু উপস্থিত ছিলেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *