রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:১৩ অপরাহ্ন

সাঁথিয়ায় সড়ক নির্মাণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত বুধবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২১
Pabnamail24

পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার এলজিইডির আরসিসি সড়ক নির্মাণ কাজের ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগে জানা যায়, পাবনার সাঁথিয়ায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনে জিওবি মেইনটেনেন্স প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৪০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে আজাহার-আফসার আলী সড়কের সাঁথিয়া পৌরসভার তিন মাথা মোর থেকে পোস্ট অফিস হয়ে ডাঃ আবুল হোসেনের বাড়ির মোর পর্যন্ত প্রায় ২৫০ মিটার আরসিসি সড়কের নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পান আহম্মেদ এন্টারপ্রাইজ নামে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। শুরু থেকেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ও সাঁথিয়া উপজেলা প্রকৌশলী অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট দায়িত্বরত অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজসে অনিয়ম করে আসছে। প্রথমত সড়কের নি¤œ মানের রড দেয়াকে কেন্দ্র করে স্থানীয়দের সাথে বিতর্ক হয় সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের। পরে বিষয়টি উপজেলা প্রকৌশলীর নিকট অভিযোগ করলে নি¤œমানের রড সরিয়ে নেয়া হয়।

অপরদিকে সরজমিনে দেখা যায়, ঢালাই মিক্সিংয়ে ব্যাপক অনিয়ম। এক দিকে মরা পাথর তা আবার ১ বস্তা সিমেন্টে ৫ কারাইয়ের পরিবর্তে ৭ কারাই পাথর ও ২ কারাই বালির পরিবর্তে সেখানে ৩ টুকড়ি বালি দিয়ে ঢালাই মিক্সিং করা হয়েছে। কারাইয়ের পরিবর্তে টুকড়ি ব্যবহারের কারণ হিসাবে জানা গেছে টুকড়িতে বেশী পরিমাণ বালি দেয়া যায়। মরা পাথর ও ময়লা আবর্জনা মিশ্রিত নি¤œমানের বালির ব্যবহার হওয়ায় কাজের মান নি¤œমানের হয়েছে। অপরদিকে ৮ইঞ্চি ঢালাইয়ের ক্ষেত্রে ৭ ইঞ্চি ঢালাই করা হয়েছে। বিষয়টি উপজেলা প্রকৌশলী ও দায়িত্বরত কর্মকর্তাকে বললে তারা কোন কর্ণপাত না করেই ঢালাইয়ের কাজ শেষ করেন। পরে স্ংাবাদিকের গোপন ক্যামেরা দিয়ে ঢালাই মিক্সিং এর ভিডিও করা হয়। তাতে সব কিছু ফুটে উঠে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রকৌশল অফিসের এক কর্মচারী সাংবাদিককে জানান, তদন্ত আসলে আজহার-আফসার আলী সড়কের প্রথম অংশের ১২ মিটারের মধ্যে থেকে স্যাম্পল নিয়ে ল্যাবে পাঠানো হবে। কারণ এই ১২ মিটার কাজ সিডিউল অনুযায়ী করা হয়েছে। তবে পুরো কাজই নয়ছয় হয়েছে কিন্তু সাংবাদিকদের ভিডিও করার বিষয়টি টের পেয়ে মাধপুরÑসাঁথিয়া সড়কের সাথে লাগানো প্রথম অংশের মাত্র ১২ মিটার কাজ সিডিউল মোতাবেক করেন।

কাজের অনিয়ম প্রসঙ্গে স্থানীয় বাসিন্দারা ও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন, পুরো কাজেই অনিয়ম হয়েছে। সড়ক নির্মাণকাজে এক বস্তা সিমেন্টের সাথে ৭ থেকে ৯ কারাই পাথর ও ৩/৪ টুকড়ি বালি দিয়ে ঢালাই মিক্সিং করা হয়েছে। তারা আরও বলেন সংশ্লিষ্ট দায়িত্বরত কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি আমাদের উপর রেগে উঠেন এবং অশালীন কথাবার্তা বলেন।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ শহিদুল্লাহ বলেন, কাজের মান খুব ভাল হয়েছে। কোন প্রকার অনিয়ম করা হয়নি। তিনি বলেন, এক বস্তা সিমেন্টে ২ টুকড়ি বালি ও ৫ কারাই পাথর দিয়েই ঢালাই মিক্সিং হয়েছে।

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!