মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
পাবনা-৪ উপ-নির্বাচনে গণসংযোগে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ চাটমোহরে দুইদিন ব্যাপী ভেলা বাইচ প্রতিযোগিতা পাবনায় এইচআইভি-এইডস প্রতিরোধে লাইট হাউসের মতবিনিময় সভা সাঁথিয়ায় শালিসে ডেকে মারপিট করার অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বেড়ায় দুই গোষ্ঠির মারামারি, আহত ৪ ঈশ্বরদীতে উপনির্বাচনের সভায় বিএনপির দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ১৫ ‘উপনির্বাচনে কারচুপি হলে ঈশ্বরদী থেকেই সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হবে’- আমান উল্লাহ পাবনা-৪ উপ-নির্বাচনের প্রচারণায় উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি, করোনা সংক্রমণের আশংকা পাবনা-৪ উপনির্বাচন-আসন ধরে রাখতে মরিয়া আ’লীগ, পুনরুদ্ধারের চেষ্টায় বিএনপি ভাঙ্গুড়ায় বৃক্ষ বিতরণ ও রোপণ করল ‘মানবিক ভাঙ্গুড়া’

সাঁথিয়ায় কর্তৃপক্ষের বিনা অনুমতিতে সরকারী স্কুলের গাছ বিক্রির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত মঙ্গলবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
Pabnamail24

পাবনার সাঁথিয়ায় বন বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে সরকারী গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে খালইভরা সরকারী প্রাঃ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। তবে তিনি বলেছেন উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ শহিদুল্লাহ তাকে অনুমতি দিয়েছেন।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার খালই ভরা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বহু পুরনো দুটি গাছ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই কেটে বিক্রির করেছেন ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমজাদ হোসেন। বিষয়টি সাংবাদিকরা জানার পর বিক্রি করা গাছের অনুমোদনের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে ঘুরছেন বলে জানা গেছে।

জানা গেছে সরকারী গাছ বিক্রি করতে হলে বনবিভাগের নিকট আবেদন করতে হয়। এরপর বন বিভাগ মুল্য নির্ধারণ করে দিয়ে অনুমোদন দেয়। সেই মোতাবেক সংশ্লিষ্ট উপজেলা কমিটি অনুমোদন দিলে তারপর সরকারী গাছ বিক্রি করতে পারবে। অথচ সরকারী বিধিবিধানকে উপেক্ষা করে শুধু উপজেলা প্রকৌশলীর অনুমতি নিয়ে সরকারী গাছ কেটে বিক্রি করেছে প্রধান শিক্ষক। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমজাদ হোসেনর নিকট অনুমতিবিহীন গাছ বিক্রি বা কেটে ফেলা বিধি সম্মত কিনা জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, বিধিবহির্ভুত কিনা জানা নেই। উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ শহিদুল্লাহ আমাকে অনুমতি দেয়ায় গাছ কেটেছি।
অনুমতি দেয়ার বিষয়ে সাঁথিয়া উপজেলা প্রকৌশলী শহিদুল্লাহ সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে গাছ কাটতে বলেছি।

এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন বলেন, আমার কাছে কোন অনুমতি নেয়া হয়নি। তবে ওনারা আজ এসেছেন। বিধি মোতাবেক আমি তাদেরকে বন বিভাগে আবেদন দিতে বলেছি।
সাঁথিয়া বনবিভাগের কর্মকর্তা শফিউজ্জামান বলেন, আমাদের নিকট কেউ আসেনি। আমরা কাউকে গাছ কাটা বা বিক্রির অনুমিত দেই নাই।

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!