বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ১২:১৯ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :

রুপকথা সড়কে জমি দখল নিতে গুলি, পাবনা চেম্বার পরিচালক আটক

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

পাবনা শহরের রূপকথার গলিতে জমি নিয়ে বিরোধে গোলাগুলি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে কেউ হতাহত না হলেও, জনমনে ব্যপক আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। শুক্রবার বিকেলের এ ঘটনায় স্বাগতম চাইনিজ রেস্টুরেন্টের মালিক ও চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন বাচ্চুকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পাবনার মধ্য শহরের রূপকথা রোডের মধুমিতা হোটেলের জমি নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলছে স্বাগতম চাইনিজের মালিক সাজ্জাদ হোসেন বাচ্চু ও প্রয়াত আওয়ামীলীগ নেতা ব্যবসায়ী হাজী শরিফের মধ্যে। স্থানীয়দের অভিযোগ, মধুমিতা হোটেলের জায়গাটি প্রায় ১২ বছরের বেশি সময় হাজী শরিফের দখলে ছিলো। কিছুদিন আগে হাজী শরিফ মারা গেলে জায়গাটি বাচ্চু জোরপূর্বক দখলে নিতে নানা কৌশলের আশ্রয় নেন। সম্প্রতি ঝড়ে দোকানটি ক্ষতিগ্রস্থ হলে হাজী শরিফের পরিবার সেখানে নতুন স্থাপনা তৈরির উদ্যোগ নেয়। তখন থেকেই ভয়ভীতি দেখিয়ে কাজ বন্ধের চেষ্টা করেন বাচ্চু। আইনগত বাধা না থাকায় শুক্রবার হাজী শরিফের স্বজনরা সেখানে নির্মাণ কাজ শুরু করলে, হঠাৎ করেই দোনলা বন্দুক দিয়ে গুলি ছুঁড়তে শুরু করেন বাচ্চু। গুলিতে রূপকথা সিনেমা হল, রূপকথার কাব্য রেস্টুরেন্ট এর দেয়াল কাঁচ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ভয়ে আতঙ্কে দিগি¦দিক ছুটাছুটি শুরু করেন নির্মাণ শ্রমিকসহ আশেপাশের দোকানীরা।

অতর্কিত গুলি বর্ষণের ঘটনায় হাজী শরীফের স্বজন ও স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে বাচ্চুকে ধাওয়া দিলে তিনি স্বাগতম রেস্টুরেন্টে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেন। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ নেয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয় ব্যবসায়ী বাচ্চুকে।

হাজী শরিফের ভাই রবিউল ইসলাম বলেন, মধুমিতা হোটেলের জায়গাটি আমার ভাইয়ের। আমাদের বৈধ কাগজপত্রসহ দখল স্বত্ব রয়েছে। সম্প্রতি দোকানের সংস্কার কাজ শুরু করলে বাচ্চু কাজ বন্ধ করে জায়গাটি দখলের চেষ্টা করেন। আমরা তাকে বার বার দলিলপত্র নিয়ে বসার কথা বললেও তিনি তাতে রাজি না হয়ে সময়ক্ষেপণ করার চেষ্টা করেন। শুক্রবার আমরা আইনশৃংখলা বাহিনীকে জানিয়ে দোকানের সংস্কার কাজ শুরু করলে তিনি প্রথমে রাজমিস্ত্রীদের ও পরে আমাদের দিকে বন্দুক তাক করে তেড়ে এসে গুলি করতে শুরু করেন।

রূপকথা সিনেমা হলের কর্মচারী আশিক জানান, বিকেলে আমি সিনেমা হলে কাজ করছিলাম। হঠাৎ চেঁচামেচির শব্দে জানালা দিয়ে উঁকি দিতেই হট্টগোল হতে দেখি। বাচ্চু সাহেব নিজে হাতে বন্দুক নিয়ে এলোপাথারি গুলি করতে থাকেন। আমাদের সিনেমা হলের দেয়ালেও গুলি লেগেছে। একটুর জন্য আমার শরীরে লাগেনি। মধুমিতা হোটেলের পরিচালক বলেন, আমি দীর্ঘ ১২ বছর হাজী শরিফের দোকান ভাড়া নিয়ে ব্যবসা করছি। কিন্তু বাচ্চু সাহেব তা দখলে নিতে চেষ্টা করছেন। আজ গুলি করেছেন। আমরা আতঙ্কের মধ্যে রয়েছি।

রুপকথা সিনেমা হলের পক্ষে জনসংযোগ কর্মকর্তা ফয়সাল মোর্শেদ টিটু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমাদের যে ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে, এর জন্য আমাদের প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে থানায় মামলা করবো। আমাদের কফিশপের লোকজন ভয়ে এদিক সেদিক পালিয়ে জীবন রক্ষা করেন বলেও তিনি জানান।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, বিরোধপূর্ণ জমিটি নিয়ে আদালতে মামলা চলছে। বাচ্চু সাহেব দাম্ভিকতার দাপট দেখাতে গুলি করেছেন। আমরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদেও জন্য আটক করেছি। ভুক্তভোগীরা মামলা করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ঘটনায় রূপকথার গলি এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..