বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:০৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
পাবনা সুগার মিল বন্ধের প্রতিবাদে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ ২৯তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস ও ২২তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস পালিত সাঁথিয়ায় ৩ বারের মেয়রকে বাদ দিয়ে প্রার্থীর তালিকা বিনামূল্যে পেঁয়াজ ও রসুন বীজ বিতরণ পাবনার বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর ফখরুল ইসলাম আর নেই চাটমোহর পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আ’লীগ-বিএনপিসহ ৫ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা ব্রিজ ভাঙ্গা নিয়ে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের নবনির্বাচিত কমিটির নেতৃবৃন্দকে সংবর্ধনা বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে কর্মবিরতি অব্যাহত ভুমি অফিস ভবনের স্থান নিয়ে পাল্টাপাল্টি অনশন ও মানববন্ধন

জামায়াতের আমিরসহ গ্রেফতার ১১

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত রবিবার, ১ নভেম্বর, ২০২০
Pabnamail24

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় অভিযান চালিয়ে উপজেলা জামায়াতে ইসলামের আমির ও সাধারণ সম্পাদকসহ ১১জন নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। শনিবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের ময়দানদিঘী বাজার থেকে তাদের আটক করা হয়। এদিকে পুলিশের দাবি, নাশকতার চেষ্টা করায় তাদের আটক করা হয়। অপরদিকে জামায়াত নেতার দাবি, ক্ষতিগ্রস্থদের সাহায্য দেওয়ায় প্রতিহিংষার শিকার।

ভাঙ্গুড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন তাদের আটকের কথা স্বীকার করে বলেন, জামায়াতের আমির ও উপজেলার শরৎনগর সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার সহকারী অধ্যাপক মাওলানা আলী আছগার এবং সাধারণ সম্পাদক ও দিলপাশার ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মজিবর রহমানসহ ১১জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে শনিবার রাতে খানমরিচ ইউনিয়নে নাশকতা চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে ভাঙ্গুড়া থানায় তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। রবিবার আটককৃতদের পাবনা জেলা করাগারে পাঠানো হয়েছে।

আটক জামায়াত নেতাদের দাবী, আমরা শনিবার সন্ধ্যায় খানমরিচ ইউনিয়নের দাসবেলাই মিয়া পাড়ায় আগুনে পোড়া বাড়ির ক্ষতিগ্রস্থ গৃহকর্তা আলাউদ্দিনকে দুই বান্ডিল ডেউ টিন দিয়ে ফেরার পথে পুলিশ আমাদের গ্রেফতার করে। এর আগে দাসবেলাই গ্রামের নিহত ফজলুল হকের পরিবারকেও জামাতের পক্ষ থেকে ১০ হাজার টাকার আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয় বলে তিনি জানান। এসব কারণে তারা খানমরিচ ইউনিয়ন আওয়মীলীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যানের প্রতিহিংষার শিকার হয়েছেন বলে ওই জামাত নেতা দাবি করেন।

মিয়া পাড়ায় পোড়া বাড়ির দরিদ্র গৃহকর্তা আলাউদ্দিন(৪৬)বলেন, শুক্রবার রাতে আগুণে আমার তিনটি ঘর পুড়ে যায়। ইউপি চেয়ারম্যান কিংবা মেম্বর কেউ দেখতে পর্যন্ত আসেনি কিন্তু জামাতের আমির ঘর নির্মাণের জন্য শনিবার সন্ধ্যায় আমাকে দুই বান্ডিল টিন দেন।

দুবৃত্তদের হামলায় নিহত দাসবেলাই গ্রামের ফজলুল হকের স্ত্রী আলফা খাতুন বলেন,ইউপি চেয়ারম্যান কিছুই দেয়নি কিন্তু জামাতের আমির তার এতিম সন্তানদের জন্য ১০ হাজার টাকা প্রদান করেছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!