বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৫২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সম্প্রীতি বিনষ্টের প্রতিবাদে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট’র মানববন্ধন ভাঙ্গুড়ায় স্কুল শিক্ষককে পিটিয়ে জখম ভাঙ্গুড়ায় সম্প্রীতি সমাবেশ ও শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত পাবনায় সম্প্রীতি সমাবেশ ও শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত সুজানগরে ১০ ইউনিয়নে আ.লীগ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থীর ছড়াছড়ি ঈশ্বরদীতে মোটর সাইকেল ও ভ্যানের সঙ্গে ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিন জন নিহত মালিগাছা ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন চাঞ্চল্যকর বিল্লাল মিশরী হত্যা রহস্য উদঘাটন; চরমপন্থি নেতা আবুসহ গ্রেপ্তার ২ সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির উজ্জ্বলতম দেশ বাংলাদেশ-অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু পাবনায় রেটিং দাবা লীগের পুরস্কার বিতরণ

বেড়ার মো.সোলায়মান নাম পালটে রাজবাড়ীতে চক্ষু চিকিৎসক

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
Pabnamail24

নিজের নাম পালটে উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার থেকে সরাসরি হয়ে গেছেন চক্ষু বিশেষজ্ঞ ও ফ্যাকো সার্জন চিকিৎসক। শহরের প্রাণকেন্দ্রে আলিশান ভবনে অনুমোদনহীন চক্ষু হাসপাতাল খুলে রীতিমতো রোগী দেখছেন তিনি।

এমন এক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের খোঁজ মিলেছে রাজবাড়ীতে। ২০২০ সাল থেকে উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সোলায়মান হোসেন বিশেষজ্ঞ ও ফ্যাকো সার্জন ডা. মো. মোস্তফা সরোয়ার সেজে ৫০০ টাকা ভিজিট নিয়ে চক্ষু রোগীদের চিকিৎসাসেবার নামে প্রতারণা করে আসছেন।

তার এই প্রতারণার কাজে তাকে সহযোগিতা করছেন তার দ্বিতীয় স্ত্রী শিমুল মুন। তিনিও নিজেকে অপথালমোলজিস্ট হিসাবে পরিচয় দেন। পাবনার বেড়া থেকে সপ্তাহে ৩ দিন (বুধ, বৃহস্পতি ও শুক্রবার) এখানে এসে মিথ্যা ডাক্তার পরিচয় দিয়ে চক্ষু রোগী দেখেন সোলায়মান হোসেন।

জানা যায়, সোলায়মান হোসেন পাবনা জেলার বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার পদে চাকরি করেন। ২০২০ সালে রাজবাড়ী শহরের বড়পুলে রাবেয়া টাওয়ারের তৃতীয় তলায় সরকারি কোনো অনুমোদন ছাড়াই গড়ে তোলেন আইভি আই কেয়ার অ্যান্ড ফ্যাকো সেন্টার নামে চক্ষু হাসপাতাল।

সেখানে নিজের নাম পালটে সোলায়মান হোসেন থেকে সেজে যান বিশেষজ্ঞ ও ফ্যাকো সার্জন ডা. মো. মোস্তফা সরোয়ার। এই নামেই তৈরি করেন ভিজিটিং কার্ড ও সাইনবোর্ড। ভিজিটিং কার্ডে তার উপাধি দেওয়া হয় সিয়াম সামী আই কেয়ার অ্যান্ড ফ্যাকো সেন্টারের কনসালটেন্ট। ভিজিটিং কার্ডে সেন্টারের ঠিকানা না দেওয়া থাকলেও সেখানে এমবিবিএস, ডিও (ডিইউ) এপিডি/স্পেশাল ট্রেনিং মাইক্রো সার্জারি, ইসলামিয়া চক্ষু হাসপাতাল, ঢাকা/ট্রেইন্ড ইন অরবিস (আমেরিকা) নামে নানা ডিগ্রির কথা উল্লেখ করা হয়।

একই ভাবে ক্লিনিকটির চেম্বারেও তার পরিচয় লিখে রাখা হয়। চেম্বারের অপরপ্রান্তে সাজিয়ে রাখা হয়েছে ৮-১০টি বেড। একই ভবনের পঞ্চম তলায় দ্বিতীয় স্ত্রী শিমুল মুনকে নিয়ে বসবাস করেন তিনি।

সংবাদকর্মীদের একজন প্রবেশের পর সেখানে ডাক্তারের চেয়ারে বসা সোলায়মান হোসেন নিজেকে ডা. মো. মোস্তফা সরোয়ার হিসাবে পরিচয় দেন। এ সময় এ প্রতিনিধির সঙ্গে থাকা একজনের চোখের পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করেন। অন্য সহকর্মী সাংবাদিকরা ক্যামেরায় কথাগুলো ভিডিও করার জন্য ক্যামেরা বের করলে ভোল পালটে ফেলেন সোলায়মান।
ক্যামেরার সামনে তিনি নিজেকে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার হিসাবে পরিচয় দেন। রোগীদের সঙ্গে নিজের প্রতারণার কথা ও দোষ স্বীকার করে সাংবাদিকদের নিউজ না করার জন্য কাকুতিমিনতি শুরু করেন।
জানা যায়, সোলায়মান হোসেন নিজেকে যে নামে পরিচয় দিতেন সেই চক্ষু বিশেষজ্ঞ ও ফ্যাকো সার্জন ডা. মো. মোস্তফা সরোয়ার টাঙ্গাইলের রোকেয়া আই কেয়ার অ্যান্ড ফ্যাকো সেন্টারের পরিচালক ও চিফ কনসালটেন্ট।
তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, রাজবাড়ীর আইভি আই কেয়ার অ্যান্ড ফ্যাকো সেন্টারের সঙ্গে তার কোনো যোগাযোগ নেই। এখানে তিনি কোনোদিনই রোগী দেখেননি। তার নাম ভাঙিয়ে যদি কেউ প্রতারণা করে তাহলে সেই প্রতারকের শাস্তি দাবি করেন তিনি।
পাবনা জেলার বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফাতেমা তুজ জান্নাত মোবাইল ফোনে বলেন, সোলায়মান হোসেন উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার হিসাবে কর্মরত আছেন। এখানে তার ডিউটি তিনি ঠিকমতোই পালন করেন। এখানে তার স্ত্রী ও দুই ছেলেও রয়েছে। রাজবাড়ীতে তার দ্বিতীয় স্ত্রী ও প্রতারণার বিষয় আমার জানা ছিল না। বিষয়টি নিয়ে আমি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।
রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডা. ইব্রাহীম মো. টিটন যুগান্তরকে বলেন, এ ব্যাপারে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিষয়টি দেখা হচ্ছে।
জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, বিষয়টি আমার আগে জানা ছিল না। এ ব্যাপারে সিভিল সার্জনের সঙ্গে কথা বলে দ্রুত আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *