রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৩৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
বড়াল নদীর মাটি যাচ্ছে ইট ভাটায়, কোটি টাকার বাণিজ্য পাবনায় ২ হাজার কৃষকের মাঝে এমপি প্রিন্স’র বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ ঈশ্বরদীতে যুবকের মৃত্যু, করোনায় আক্রান্ত ছিল বলে দাবী এলাকাবাসীর পাবনার ধনাঢ্য ব্যবসায়ীকে ফিল্মি স্টাইলে জোরপূর্বক পাগল সাজিয়ে হাসপাতালে দেয় ছেলে পাবনা পৌর এলাকার মাঠপাড়ায় এমপি প্রিন্স’র ইফতার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অপহরণের পর লাখ টাকা চাঁদা দাবি, বিকাশের এজেন্ট সেজে উদ্ধার করল পুলিশ সাঁথিয়ায় যুবলীগ নেতার বাড়ি থেকে লুট হওয়া গরু উদ্ধার আটঘরিয়ায় অনৈতিক কাজে বাধ্য করার অভিযোগ, মা-বাবাসহ গ্রেপ্তার ৩ সাঁথিয়ায় আ’লীগ নেতার স্ত্রীর বিরুদ্ধে ঘর দেয়ায় অর্থ নেয়ার সত্যতা মিলেছে আটঘরিয়ায় লকডাউনের প্রথম দিনে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন

নাম ফলকে এমপির নাম না থাকায় তার উপস্থিতিতে তা ভেঙ্গে দেয়া হয়

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
Pabnamail24

পাবনার কাজিরহাট-আরিচা নোরুটে ফেরী সার্ভিস চালুর উদ্বোধনের নাম ফলকে স্থানীয় এমপি আহমেদ ফিরোজ কবিরের নাম না থাকায় তার উপস্থিতিতেই তা ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তার লোকজনেট বিরুদ্ধে। এ সময় বিআইডব্লিউটিএর লোকজন বাধা দিতে গেলে তাদেরও ধাওয়া করা হয়।

এমপির সমর্থক ফিরোজ মোল্লা বলেন, আমাদের এমপির নাম না থাকায় স্থানীয় লোকজন বিক্ষুব্ধ হয়ে এই ফলক ভাংচুর করেছে।

কাজীরহাট ঘাটের ইজারাদার সাদ্দাম হোসেন জানান, দীর্ঘ প্রায় দুই যুগ পর পাবনার কাজীরহাট ও মানিকগঞ্জের আরিচা নৌ রুটে ফেরী চলাচলের উদ্যোগ নেন বর্তমান সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারী এই নৌরুটের উদ্বোধন করার কথা ছিল নৌ পরিবহন প্রতিমন্তী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী মহোদয় এর। সেই মোতাবেক বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় এমপি আহমেদ ফিরোজ কবির ওই এলাকা দেখতে যান। এ সময় তার উপস্থিতিতেই তার লোকজন তা ভেঙে চুরমার করে দেন।

এ বিষয়ে ওই এলাকার আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল করিম বকুল বলেন, এমপি সাহেব এলে তার সামনেই ওই এলাকার লোকজন তা ভেঙে দেয়। নিয়মানুযায়ী প্রধান অতিথির নামের পরে স্থানীয় এমপির নাম থাকার কথা, কিন্তু তার নাম মা দেওয়ায় আমাদের লোকজন বিক্ষুব্ধ হয়ে তা ভেঙে দেয়।

এ ব্যাপারে এমপির লোক হিসেবে ওই এলাকায় পরিচিত খালেক মোল্লা জানান, আমি ভাঙি নাই, কারা এ কাজ করছেন সেটাও জানি না।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিএ এর টেকনিক্যাল সহকারী শহিদুল ইসলাম জানান, কারা ধাওয়া করছেন, তাদের আমরা চিনি না। তবে এমপি সাহেবের নাম না থাকায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে এৃন কাজ করেছেন। বিষয়টি অফিসিয়ালি দেখা হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এমপি সাহেব আাসার পর তার উপস্থিতিতে তার সামনে এভাবে ভেঙে দেয়া হলেও এমপি বিষয়টি নিয়ে কোন কথা বলেন নাই। তার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ মদদেই এই নাম ফলকটি ভেঙে ফেলা হয়। এমপি সবই জানতেন, এটি পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ভাঙ্গা হয় বলেও তাদের দাবী।

আমিনপুর থানার ওসি ঘটনাস্থলে থাকলেও বিষয়টি জানেন না বলে জানান। তবে এমপি স্যার এসেছিল সেখানে আমি গিয়েছিলাম।

এ বিষয়ে স্থানীয় এমপি আহমেদ ফিরোজ কবিরের মুঠোফোনে কয়েকবার চেস্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *