বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮:২১ অপরাহ্ন

নির্বাচন এলেই প্রার্থী হন বেড়ার আফজাল হোসেন!

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত সোমবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২০
Pabnamail24

নির্বাচন এলেই মৌসুমী প্রার্থী হন পাবনার বেড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আফজাল হোসেন। ঢাকায় বসবাসরত এই নেতা বেড়া উপজেলার গোপিনপুর গ্রামের মৃত নিফাজ উদ্দিনের ছেলে।
বার বার আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন চেয়ে ব্যর্থ হয়ে এই নেতা নৌকার বিপক্ষে নির্বাচন করলেও প্রতিটি নির্বাচনেই তার শোচনীয় পরাজয় হয়েছে। আগামী ১০ ডিসেম্বর বেড়া উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনেও তিনি নৌকার বিপক্ষে নির্বাচন করতে স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০০৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিত বেড়া উপজেলা নির্বাচনে জেলা আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী আজিজুল হক আরজুর বিপক্ষে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করেন। পরবর্তীতে ১৭ মার্চ ২০১৪ ই্ং তারিখে অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হলেও চাঞ্চল্যকর সুলতান হত্যা মামলার অন্যতম আসামী হওয়ায় নির্বাচন থেকে সরে দাড়াতে বাধ্য হন বিতর্কিত এই আওয়ামলীগ নেতা। এরপর ১৮ মার্চ ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ উপজেলা নির্বাচনেও বঙ্গবন্ধুর ¯েœহধন্য বীরমুক্তিযোদ্ধা সদ্য প্রয়াত আব্দুল কাদেরের নৌকা প্রতীকের বিপক্ষে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করে বিপুল ভোটে পরাজিত হন এই আফজাল।

স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা জানান, বার বার দলের বিপক্ষে অবস্থান নেওয়ার পরেও বিতর্কিত এই নেতা সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু এমপি ও তার ভাই উপজেলা আওয়ামীলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি আব্দুল বাতেনের ঘনিষ্টজন হওয়ায় তার বিরুদ্ধে দলীয় কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হয় নাই। এতে উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্যাগী ও পরীক্ষীত নেতাদের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করলেও বিপুল অবৈধ সম্পদের মালিক, বিতর্কিত এই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস করেনি।

বেড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের’র মৃত্যুতে সম্প্রতি শুন্য পদে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা হলে আওয়ামীলীগ নেতা আফজাল হোসেন ঢাকা থেকে এলাকায় ফিরে আসেন। ব্যানার ফেষ্টুন লাগিয়ে প্রার্থীতা ঘোষনা করেন। সর্বশেষ তিনি দলীয় মনোনয়নের জন্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন পত্র ক্রয় করে তা জমা দেন। দল তাকে নৌকা প্রতীক না দিয়ে জাতসাকিনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল হক বাবু দলীয় মনোনয়ন পেলে আফজাল স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রবিবার মনোনয়ন প্রত্র জমা দেন।

বেড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আব্দুর রশিদ দুলাল বলেন, বার বার দলের সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে নৌকার বিপক্ষে অবস্থান নিলেও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল বাতেনের ব্যবসায়িক অংশীদার হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। বরং তাকে পুরষ্কৃত করে উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক পদ দেওয়া হয়েছে। এবারও তিনি একই ভাবে এবারও অতিথী পাখির মতো এসে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। আমি দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল পাল’র সাথে কথা বলে তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা গ্রহনের সুপারিশ করবো।

তিনি আরো বলেন, আফজাল হোসেন প্রার্থী হয়েই আব্দুল বাতেনের অনুসারী সন্ত্রাসীদের দিয়ে গত শনিবার আমাদের দলীয় প্রার্থী রেজাউল হক বাবুর উপর সন্ত্রাসী হামলা চালায়। ওই হামলায় প্রায় ৫০টি গাড়ি ভাংচুর ও ৩০জন নেতাকর্মী আহত হয়। এই আফজাল নির্বাচন সামনে রেখে চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের পেছনে লক্ষ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করেছেন বলেও এলাকায় জনশ্রুতি রয়েছে। শনিবারের সিএন্ডবি মোড়ে সন্ত্রাসী হামলা সেই নীল নকশারই বাস্তবায়ন বলে আমরা মনে করছি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!