বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৯:১৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সম্প্রীতি বিনষ্টের প্রতিবাদে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট’র মানববন্ধন ভাঙ্গুড়ায় স্কুল শিক্ষককে পিটিয়ে জখম ভাঙ্গুড়ায় সম্প্রীতি সমাবেশ ও শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত পাবনায় সম্প্রীতি সমাবেশ ও শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত সুজানগরে ১০ ইউনিয়নে আ.লীগ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থীর ছড়াছড়ি ঈশ্বরদীতে মোটর সাইকেল ও ভ্যানের সঙ্গে ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিন জন নিহত মালিগাছা ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন চাঞ্চল্যকর বিল্লাল মিশরী হত্যা রহস্য উদঘাটন; চরমপন্থি নেতা আবুসহ গ্রেপ্তার ২ সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির উজ্জ্বলতম দেশ বাংলাদেশ-অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু পাবনায় রেটিং দাবা লীগের পুরস্কার বিতরণ

ফরিদপুরে আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে সরকারি সাব-মারসিবল বিক্রির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
Pabnamail24

পাবনার ফরিদপুর উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তরের অধীনে বরাদ্দ পাওয়া একটি নলকূপ (সাব-মারসিবল) মটর বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে আশরাফ আলী (৪০) নামে এক আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ডেমরা ইউনিয়নের খাগুরিয়া গ্রামে। অভিযুক্ত আশরাফ ডেমরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও শাকপালা গ্রামের মৃত ফকির উদ্দিনের ছেলে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, মটর বিক্রির বিষয়টি উপজেলা জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে জানানো হলেও তিনি কোনো আইনগত পদক্ষেপ নেননি।

জানা গেছে, সমগ্র দেশের পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় পাবনার ফরিদপুর উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তর থেকে দলীয় ভাবে একটি সাব-মারসিবল মটর বরাদ্দ পান আ.লীগ নেতা আশরাফ আলী। পরে তিনি বরাদ্দ পাওয়া মটরটি নিয়ে একই ইউনিয়নের খাগুরিয়া গ্রামের আব্দুল বাকের উদ্দিনের (৪৫) কাছে বিক্রি করে দেন। বাকের ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। পরে বাকের মটরটি তার মেয়ে জামাই আব্দুল হাই এর বাড়িতে স্থাপন করতে গেলে এলাকাবাসী উপজেলা জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানান।

উপজেলা জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ইঞ্জিনিয়ার মোঃ আবুল কালাম আজাদ বলেন, এলাকাবাসীর মৌখিক অভিযোগ পেয়ে সরেজমিনে গিয়ে মটর স্থাপনের কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং বিষয়টি ইউএনও স্যারকে জানানো হয়েছে।

অভিযুক্ত আ.লীগ নেতা আশরাফ আলী মটর বিক্রি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, মটরটি আমি নামে বরাদ্দ আসে। কিন্তু বাকের ভাইয়ের বাড়িতে মটর না থাকায় তাকেই দিয়ে দেওয়া হয়। কিছু মানুষ তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছেন বলে তিনি দাবি করেন।

মটর কেনার বিষয়টি অস্বীকার করে বাকের আলী বলেন, তিনি আশরাফ আলীর কাছ থেকে মটর এনে তার মেয়ে জামাইকে দিয়েছেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খলিলুর রহমান খলিল বলেন, দলীয় ভাবে আশরাফ আলীকে একটি মটরটি দেওয়া হয়েছে। তবে শুনেছি তিনি তার মটরটি অন্য একজনকে দিয়েছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছাঃ জেসমীন আরা বলেন, কেউ এখনো অভিযোগ দেয়নি। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *