শনিবার, ১২ জুন ২০২১, ১১:০৪ অপরাহ্ন

হারানো টিয়া পাখি উদ্ধার করলো মানবিক পুলিশ

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত রবিবার, ৯ মে, ২০২১
Pabnamail24

পাখি প্রেমি পিয়ার আলীর ক্ষুদে বার্তার পুলিশ সুপারের নির্দেশনার থানার ওসি গিয়ে হারানো টিয়াপাখির জোড়া উদ্ধার করে মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে পাবনার বেড়া উপজেলার আমিনপুর থানার নয়াবাড়ি এলাকায়।

শনিবার (৮ মে) বিকেলে বেড়া উপজেলার আমিনপুর থানার নয়াবাড়ি গ্রাম থেকে পাখির বাচ্চা দুটিকে উদ্ধার করে অবমুক্ত করা হয়। আর এ কৃতিত্বের দাবীদার পাবনার পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান ও আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী।

আমিনপুর থানা পু্লিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী জানান, পাবনার পুলিশ সুপারের সরকারী ফোনে আসা একটি মেসেজের মাধ্যমে জানতে পারি আমিনপুর থানাধীন নয়াবাড়ী গ্রামের কাজী সারওয়ার আলম পিয়ার (৫৮) আলীর বসত বাড়ির বাহির আঙিনায় বেশ বড় বড় নারিকেল গাছ, তারমধ্যে একটি নারকেল গাছ পিয়ার আলীর ঘরের জানালার পাশে অবস্থিত। অনুমান পাঁচ বছর পূর্বে গাছটির মাথায় বজ্রপাত হলে গাছটি মারা যায়। মাটি হতে প্রায় ৪০ ফিট উপরে নারকেল গাছের মধ্যে একটি গর্ত সৃষ্টি হয় এবং সেই গর্তে গত দুই থেকে আড়াই মাস পূর্বে এক জোড়া টিয়া পাখি বাসা বাঁধে। সেখানে ডিম দেয়, ডিম থেকে বাচ্চা ফোটে, মা পাখিটা প্রতিদিন বাচ্চা টিয়া পাখি জোড়া কে খাওয়াতো সেই দৃশ্য পিয়ার আলী তার বাড়ির আঙিনায় বসে দেখত, শুক্রবার (৭ মে) হঠাৎ করে বাচ্চাগুলো না পাওয়ায় সেগুলো চুরি হয়েছে সন্দেহ করে পিয়ার আলী পুলিশ সুপারকে মেসেজ করলে বিষয়টি এসপি স্যারের নির্দেশ নিয়ে কাজ শুরু করি ।

তিনি আরো বলেন, জনৈক ব্যক্তি অনেকদিন ধরেই ওৎ পেতে ছিল বাচ্চা চুরি করার জন্য। বাচ্চাগুলোকে মায়ের ভালোবাসা থেকে বঞ্চিত করার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে সে। মায়ের কোল থেকে ছানা জোড়াকে চিরতরে বঞ্চিত করার জন্য ঘটনার দিন মাগরিবের আযানের পরেই পিয়ার আলীর বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগ বুঝে ছানা জোড়া চুরি করে নিয়ে যায়। পরে নয়াবাড়ি শীল পাড়া গ্রামের আরেক ব্যক্তির নিকট ১৫০০ টাকায় বিক্রি করে দেন।

পাবনার পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান জানান, বৃহস্পতিবার (৬ মে) নয়াবাড়ি গ্রামের জনৈক ব্যক্তি) পিয়ার আলীর নারিকেল গাছ থেকে টিয়া পাখির দুটি ছানা চুরি হয়ে গেলে আমার সরকারি ফোনে মেসেজ দিলে আমিনপুর থানার ওসিকে নির্দেশনা দেই।

তিনি বলেন, শুক্রবার রাতে জিজ্ঞাসাবাদে জনৈক ব্যক্তি প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে চুরির বিষয়টি স্বীকার করে। এরপর শনিবার সকালে যে কিনেছিল তার নিকট থেকে টিয়া পাখির ছানা জোড়া নিয়ে আসে। পরে বাচ্চাজোড়া উদ্ধার করে থানায় আনা হয়। পাখির মালিক পিয়ার আলীকে তাহার প্রিয় সেই টিয়া পাখির ছানা জোড়া উদ্ধার করা হয়েছে জানালে তিনি ভীষন খুশি হন। পেয়ার আলী ও ওসি আমিনপুর থানা টিয়া পাখির বাচ্চা দুটোকে আজ বিকেলে মুক্ত করেন।

তিনি আরো বলেন, দায়ী ব্যক্তি বন্যপ্রাণী আর এভাবে শিকার করবেন না বলে অঙ্গীকার করায় তাকে মুচলেকা দিয়ে তার আত্মীয়দের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আর পিয়ার আলীর দাবী, সমাজে পশুপাখিকে ভালো বাসলে মানুষকে ভালোবাসা যায়। সবাইকে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন মান্য করে চলার অনুরোধ জানান।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!