শনিবার, ২১ মে ২০২২, ১১:২৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় সুজানগরে ছাত্রীকে পিটিয়ে জখম, সহপাঠিদের প্রতিবাদ সুজানগরে সরকারি কালভার্ট ভেঙে নির্মাণ সামগ্রী লুট, তদন্ত কমিটি এমপি পুত্রের স্লিপ অব টাং! হাসপাতোলে অনিয়মের প্রতিবাদ করায় রোগীকে হুমকির অভিযোগ পামেক ছাত্রলীগ সম্পাদকের বিরুদ্ধে জনশুমারি, পাবনায় আগামী ১৫ থেকে ২১ জুন অনুষ্ঠিত হবে রাধানগর অবৈধ ভাবে ভোজ্য তেল মজুদ, জরিমানা আদায় বেড়া-সাঁথিযায় আধা পাকা ধান নিয়ে কৃষকের যুদ্ধ,পানিতে নষ্ট হচ্ছে পাট বেড়ার চরে গো-খামারে ভাগ্যবদল রেলমন্ত্রীর আত্মীয় কান্ডে তদন্তে টিটিই শফিকুল নির্দোষ প্রমাণিত সাঁথিয়ায় মৃত গরুর মাংশ বিক্রয় করায় কসাইকে ১বছরের কারাদন্ড

ভাড়ারায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হত্যা মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান জেল হাজতে

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত সোমবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০২২
Pabnamail24

পাবনা সদরের ভাঁড়ারা ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইয়াসিন আলম (৪০) হত্যা মামলার প্রধান আসামী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ভাঁড়ারা ইউপি চেযারম্যান আবু সাঈদ খান (৫২)সহ তিনজনকে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।
সোমবার (৩১ জানুয়ারি) দুপুরে পাবনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আসাদুজ্জামান এ আদেশ দেন।
পাবনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারী কৌসুলি এডভোকেট আব্দুস সামাদ খান রতন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। আলীর ছেলে আলম( ৩৩), চকভাড়ারা গ্রামের মৃত রানু শেখের ছেলে শামসুল হোসেন (৪০)।

তিনি জানান, ভাঁড়ারা ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইয়াসিন আলম হত্যা মামলায় বর্তমান চেয়ারম্যান আবু সাঈদ খান সহ ৩৪ জন আসামী করা হয়। তাদের মধ্যে প্রধান আসামী আবু সাইদসহ ৫ আসামী হাইকোর্ট এর আদেশে জামিনে ছিলেন। জামিনের মেয়াদ শেষে ৩১ জানুয়ারী আসামীরা জেলা দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পন করে পুনরায় জামিন আবেদন করেন। এ সময় বিচারক জামিন না মঞ্জুর করে বর্তমান চেয়ারম্যানসহ তিনজনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। দুইনজনের জামিন মঞ্জুর করে আদালত। এই মামলার বাকি আসামীরা পলাতক রয়েছে।
জেল হাজতে পাঠানো আসামীরা হলেন- ভাঁড়ারা ইউনিয়নের নলদহ গ্রামের মৃত হাচেন খাঁর ছেলে ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ খান (৫২), বিজয়রামপুর গ্রামের মহির বিশ্বাসের ছেলে নাদের বিশ্বাস( ৫৩), নলদহ গ্রামের জেলেমুদ্দিনের ছেলের সমো (৩১)।
এ সময় ২ জনকে জামিন দেওয়া হয়। তারা হলেন ভাঁড়ারা ইউপির দিঘলকান্দি গ্রামের মোহাম্মদ।

আদেশের পর আসামীদের পাবনা কোর্ট চত্তর থেকে পুলিশী কড়া নিরাপত্তা বেষ্টুনিতে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।
ভাঁড়ারা ইউনিয়নের চতুর্থধাপের গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর পাবনা সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও চেয়ারম্যান প্রার্থীকে হত্যার কারণে ভাঁড়ারা ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ স্থগিত হওয়ায় বাকি ৯ টি ইউপিতে ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মামলার এজহার সূত্রে জানা গেছে, গত ১১ ডিসেম্বর সকালে ভাঁড়ারা ইউনিয়নের কোলাদি গ্রামের চারাবটতলা এলাকায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী (ঘোড়া মার্কা) সুলতান মাহমুদের ১৫-২০ জন সমর্থক ভোটের প্রচারণায় বের হন। এ সময় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবু সাঈদ খানের লোকজনের সঙ্গে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে ।

এতে সুলতান মাহমুদের চাচাতো ভাই স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইয়াসিন আলমসহ দুই পক্ষের অন্তত ২৫ জন গুরুতর আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার সময় ইয়াসিন আলম মারা যান। এ ঘটনায় পরেরদিন ১২ ডিসেম্বর রাতে নিহত ইয়াসিন আলমের পিতা মোজাম্মেল হক বাদি হয়ে ৩৪ জনের নামে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!