বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০২:০২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কোলচুরি গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে বোমা নিক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর সাথে পাবিপ্রবি উপাচার্য ও উপ-উপাচার্যের সৌজন্য সাক্ষাৎ সাঁথিয়ায় নকল প্রসাধনী কারখানার সন্ধান, ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ মাসের কারাদন্ড ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের ভারে ভারাক্রান্ত বেড়ার মাশুন্দিয়া ডিগ্রি কলেজ পাবনায় ফজিলাতুননেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী পালিত চাটমোহরে ট্রেনের ধাক্কায় মহিলার মৃত্যু ভারতে বসবাস, চাকুরী করেন বাংলাদেশে! কৌশলে নেন বেতন আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে- এমপি প্রিন্স শেখ কামালের জন্ম বার্ষিকী, পাবনায় নানা আয়োজন সাঁথিয়ায় নারী উদ্যোক্তাদের উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

ভোট নিয়ে বিবাদে হেমায়েতপুরে আ. লীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত মঙ্গলবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২১
Pabnamail24

পাবনায় ইউনিয়িন পরিষদ নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় প্রতিপক্ষের গুলিতে এক আওয়ামীলীগ নেতা নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে হেমায়েতপুর ইউনিয়নের নাজিরপুর হাটপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত শামীম হোসেন (৪০) ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক ও নাজিরপুর হাটপাড়া গ্রামের নূর আলী প্রামাণিকের ছেলে। এ ব্যাপার নিশ্চিত করেছেন পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জুয়েল।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সন্ধ্যায় ওই গ্রামে একটি দোকানের পাশে বসে সদ্য পরাজিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মঞ্জুরুল আলম মধু ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক শামীম হোসেন প্রামানিক বসে কথা বলছিল। এ সময় অপর স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান অটোরিক্সা প্রতীকের প্রার্থী তরিকুল ইসলাম নিলুর লোকজনের সাথে মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এরই এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষ সমর্থকরা নিলুকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি এসে অতর্কিত ভাবে তার লাইসেন্সকৃত বন্দুক দিয়ে গুলি চালায়। এ সময় শামীম গুলিবিদ্ধ হলে তাৎক্ষনিক স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগের চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি আনোয়ারুল আজীম চিনু বলেন, সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে নিলুর সমর্থকরা পরাজয় নিশ্চিত হয়ে জামায়াতের প্রার্থীকে সমর্থন দেয়। তাদের সমর্থনে জামাতের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম বিজয়ী হয়েছে। নির্বাচনী বিষয় নিয়ে আমরা যারা নৌকার নির্বাচন করেছি তারা সন্ধ্যায় মূল্যায়ণ বৈঠক করছিলাম। হঠাৎ নিলু ও তার ছেলে ইমরানের সাথে শিবির কর্মীরা অতর্কিত আমাদের উপর হামলা চালায়। এ সময় গুলি চালালে শামিম গুলিবিদ্ধ হয়। তাৎক্ষনিক আমরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করি।

এ ঘটনার পর পরই হাসপাতালে ছুটে যান পাবনা জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি।

এ সময় তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে অবাধ ও সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে। আওয়ামীলীগের প্রার্থী পরাজিত হলেও সরকার জিতেছে। বিজয়ের মাসে প্রকাশ্যে ত্যাগী আওয়ামীলীগ কর্মীকে এভাবে হত্যা কোনভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। আমি প্রশাসনকে অনুরোধ করবো যারাই এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত তাদেও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি। নির্বাচনের পরদিন থেকেই শামীমকে এরা বিভিন্ন ভাবে হুমকী দিয়ে আসছিল। স্বতন্ত্র প্রার্থীর সাথে জামায়াতের যোগসাজশে এই হত্যাকান্ড হয়েছে বলেও দাবী তার।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, ঘটনার পর পরই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। তবে যারাই এ ঘটনার সাথে জড়িত তাদের খুজে বের করা হবে। আমাদের লোকজন এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান পরিচালনা করছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ ডিসেম্বর হেমায়েতপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম নির্বাচিত হন এবং নৌকার প্রার্থী মঞ্জুরুল আলম মধু ও স্বতন্ত্র প্রার্থী তরিকুল ইসলাম নিলু পরাজিত হন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!