শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ১১:৪৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
আব্দুল্লাহ-গালিব সৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্টে নিমফুল রিফাত সৃতি সংঘের ২ উইকেটে জয় পাবিপ্রবি ভিসির বিরুদ্ধে নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ, গনিত বিভাগের চেয়ারম্যান লাঞ্ছিত সাঁথিয়ায় দেবরের ঘরে ভাবির বিয়ের দাবিতে আমরণ অনশন আব্দুল্লাহ-গালিব সৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের খেলায় পাবনা ইগলস জয়ী পাবনায় আদালত চত্বর থেকে সাক্ষী অপহরণ, বাধা দেয়ায় লাঞ্ছিত ৩ আইনজীবী চলনবিলে শীত উপেক্ষা করে কৃষকরা বোরো রোপণে ব্যস্ত ঈশ্বরদীতে শিশু হত্যা মামলায় এক আসামির যাবজ্জীবন চলনবিলাঞ্চলে শীতে ছিন্নমূল মানুষের দুর্ভোগ চাটমোহরে ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে দুধ ব্যবসায়ীর মৃত্যু জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে নির্বাচনী সংঘাতে এলাকাছাড়া পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

মালিগাছায় চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিরুদ্ধে জঙ্গি সম্পৃক্ততার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত বুধবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২১
Pabnamail24

পাবনার সদরের মালিগাছা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মন্তাজ আলীর বিরুদ্ধে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা ও নির্বাচনে কালো টাকা ছড়িয়ে ভোট কেনার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। বিভিন্ন সন্দেহজনক উৎস থেকে টাকা এনে মন্তাজ আলী ভোটারদের নানা উপহার সামগ্রীর পাশাপাশি বিকাশের মাধ্যমে নগদ অর্থও বিতরণ করছেন করছেন বলে অভিযোগ এনেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামীলীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী। জঙ্গি সন্ত্রাসীদের এনে নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার ও নাশকতার আশংকাও জানিয়েছেন তারা। তবে, নির্বাচনে জনসমর্থন না পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা অসত্য অভিযোগ করছেন বলে দাবী স্বতন্ত্র প্রার্থী মুন্তাজ আলী।

স্থানীয়রা জানান, আগামী ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় মালিগাছা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের মনোনয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন উম্মত আলী, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে আনারস প্রতীক নিয়ে মাঠে রয়েছেন সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সদ্য বহিষ্কৃত সহ সভাপতি আরিফুল ইসলাম ও ঘোড়া প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন মুনতাজ আলী। শেষ মুহূর্তের জমজমাট প্রচারণায় এখন ব্যস্ত সময় কাটছে প্রার্থীদের। বড় ধরণের কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী মুনতাজ আলীর বিরুদ্ধে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা, সন্দেহজনক অর্থ লেনদেন ও ভোটারদের মধ্যে নগদ টাকা ও উপহার বিতরণের অভিযোগ উঠেছে।

পাবনা সদর উপজেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম মুন্নু বলেন, মুনতাজ আলীর ভাতিজা রাকিবুল ওরফে রাব্বি নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের পাবনা আঞ্চলিক কমান্ডার। রাকিবের নেতৃত্বে ২০১৫ সালে জঙ্গি সন্ত্রাসীরা ঈশ^রদীতে খ্রিস্টান ধর্মযাজক লুক সরকারকে বাড়িতে ঢুকে গলাকেটে হত্যাচেষ্টা চালায়। তার পরিবারের আরও কয়েকজন সদস্যও জঙ্গি তৎপরতার সাথে যুক্ত। মুনতাজ আলী পোল্ট্রি শিল্পের ফিড ব্যবসার সাথে যুক্ত। কিন্তু নির্বাচনে তিনি যেভাবে অর্থ ছড়াচ্ছেন তা নিয়ে জনমনে কেবল সন্দেহ নয় আতঙ্ক বিরাজ করছে।

আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী উম্মত আলী অভিযোগ করেন, মুনতাজ আলী সৈয়দ ফজলুর রহমান-মমতাজ বেগম- মুনতাজ আলী কল্যাণ ট্রাস্ট নামে একটি সংগঠনের আড়ালে সন্দেহজনক উৎস থেকে কোটি কোটি টাকা এনেছেন। তারা রাতের আঁধারে বাড়ি বাড়ি গিয়ে এবং বিকাশের মাধ্যমেও এসব টাকা বিতরণ করে ভোটের মাঠে ্অরাজক পরিস্থিতি তৈরি করেছেন। প্রশাসন বিষয়টি তদন্ত করলেই প্রমাণ পাবেন। মুনতাজ আলীর পরিবারের বিরুদ্ধে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ পুরনো, এখন নতুন করে কোন ষড়যন্ত্র করছে কিনা তা খতিয়ে দেখা দরকার।

উম্মত আলী আরো বলেন, মুনতাজ আলীর লোকজনের কালো টাকার দাপটে এখন এলাকায় নির্বাচন করাই দায় হয়ে পড়েছে। এরপরেও তিনি মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলন করে আমার বিরুদ্ধে প্রচারণায় বাধা দেয়ার অভিযোগ করেছেন। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে আমি প্রশাসনিক নজরদারী বৃদ্ধির দাবী জানাই।

একই ধরনের অভিযোগ করেছেন, আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আরিফুল ইসলাম। তিনি বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আমি বিপুল ভোটে জয়লাভ করবো। কিন্তু মুনতাজ আলী ও তার লোকজন প্রকাশ্যে ভোট কিনছেন। জেএমবির জঙ্গি হওয়ায় তার দুই ভাতিজা এখনো কারাগারে রয়েছে। তাদের কাছে বিভিন্ন উৎস থেকে টাকা আসছে। এসব টাকার উৎস কি তা খতিয়ে দেখা দরকার। এছাড়া নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে নৌকার পক্ষেও বহিরাগত সন্ত্রাসীদের আনাগোনা বেড়েছে। প্রশাসনের কাছে এসব বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে দাবী জানাই। আমি নির্বাচন কমিশনেও বিষয়টি লিখিতভাবে জানাবো।

পাবনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি সূত্র জানায়, ধর্মজাজক লুক সরকার হত্যা চেষ্টা মামলার প্রধান আসামী ও জেএমবির আঞ্চলিক কমান্ডার রাকিবুল ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী মুনতাজ আলীর আপন চাচাতো ভাইয়ের ছেলে। ২০১৫ সালের ৫ অক্টোবর ঈশ^রদী শহরে লুক সরকারের বাড়িতে ঢুকে গলাকেটে হত্যার চেষ্টা করে রাকিব ও তার সহযোগীরা। প্রশাসনের অভিযানে টিকতে না পেরে ২০১৫ সালে ২৮ অক্টোবর পরিবার রাকিবকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। ঐ মামলায় রাকিব ১৬৪ ধারায় স্বীকোরোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। সে এখনো কারাগারে অন্তরীণ।

তবে, জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা ও নির্বাচনে টাকা ছড়ানোর অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী মুনতাজ আলী। তিনি বলেন, জনসমর্থন না পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা অসত্য অভিযোগ করছে। আমি অভিযোগের স্বপক্ষে তাদের কাছে কোন তথ্য প্রমাণ নেই। নৌকা ও আনারস প্রতীকের প্রার্থী বহিরাগত সন্ত্রাসীদের এনে এলাকায় ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করছে।
জঙ্গিবাদে যুক্ত হওয়ায় রাকিবকে তার পরিবারই পুলিশে সোপর্দ করেছিলো। তাদের সাথেও আমার কোন সম্পর্ক নেই।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!