বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০২:০৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
এমপি ফিরোজ কবীরকে কুলাঙ্গার বললেন ইউপি চেয়ারম্যান শাজাহান! বেড়ার সেই বিতর্কিত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে তদন্ত অনুষ্ঠিত সাঁথিয়ায় করোনার টিকার এসএমএসের ফাঁদে হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা পাবনায় স্ত্রীকে গুলি করে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড পাবনায় শিশু স্কুল শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যা মাশুন্দিয়া ডিগ্রি কলেজ, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ! কোলচুরি গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে বোমা নিক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর সাথে পাবিপ্রবি উপাচার্য ও উপ-উপাচার্যের সৌজন্য সাক্ষাৎ সাঁথিয়ায় নকল প্রসাধনী কারখানার সন্ধান, ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ মাসের কারাদন্ড ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের ভারে ভারাক্রান্ত বেড়ার মাশুন্দিয়া ডিগ্রি কলেজ

ভাঁড়ারা ইউপিতে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী খুন, চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন স্থগিত, উত্তাল অবস্থা

বিশেষ প্রতিবেদক, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত শনিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২১
Pabnamail24

পাবনা সদর উপজেলার ভাঁড়ারা ইউপিতে নির্বাচনী সংঘর্ষে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইয়াসিন আলম (৪০) নিহত হয়েছেন। প্রার্থী নিহত হওয়ায় ভাঁড়ারা ইউপিতে আগামী ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের ভোট স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সকালে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী (ঘোড়া মার্কা) সুলতান মাহমুদের সমর্থকরা নির্বাচনী প্রচারণায় বের হন। এ সময় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবু সাঈদ খানের লোকজন বাধা দিলে সংঘর্ষ ও গোলাগুলি শুরু হয়। এ সময় সুলতান মাহমুদের চাচাতো ভাই স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপার্থী ইয়াসিন আলমকে কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। এ সময় দুই পক্ষের অন্তত ২০ জন গুরুতর আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অবস্থার অবনতি হলে তাঁদের মধ্যে ছয়জনকে রাজশাহী মেডিকেলে স্থানান্তর করা হয়। রাজশাহী নেওয়ার পথে নাটোরের বনপাড়ায় মারা যান ইয়াসিন আলম।

স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সুলতান মাহমুদ বলেন, ‘গতকাল শুক্রবার রাত ১০টার পরে আমার হয়ে যারা প্রচারণা করেছেন তাঁদের মধ্যে চার-পাঁচজনের বাড়িতে গিয়ে সাঈদ চেয়ারম্যানসহ ১০-১৫ জন মিলে গুলি চালিয়েছে। আমার হয়ে ভোট না করার হুমকিও দেয়। তখন থেকেই এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। পরে আজ সকালে আহতদের আমার সমর্থকেরা দেখতে গেলে চেয়ারম্যানের লোকজন আমার লোকের ওপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায় এবং গুলি করে।’ আহতরা হলেন ভাড়ারা গ্রামের রিয়াদ হোসেন (২২), তুহিন আহমেদ (২৩), আব্দুর রহিম (৩৩), হোসেন আলী (৫০),রুবেল হোসেন (৩০), নলদহ গ্রামের আল্লেক শেখ (৪০), জসিম উদ্দিন (৩৫), আবু তালেব (৩২), তুহিন হোসেন (২৭) আব্দুল্লাহ (৩৫), লালু শেখ (৩৩) মোস্তফা (৪০) ও আল আমিন (২৮)। সহ বেশ কয়েকজন ।

আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী আবু সাঈদ খান অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘গতকাল রাতে আমার লোকজন নৌকার ভোট চাইতে গেলে কালাম মেম্বরকে সুলতানের লোকজন হাতুড়িপেটা করে। সকালে আমি তাঁকে দেখতে যাই। ফিরে আসার পথে কোলাদী ইন্দ্রারা মোড়ে এলে জয় বাংলা শ্লোগান দিয়ে সুলতানের লোকজন আমাদের ওপর গুলি করে। এ সময় আমাকে চতুরদিক থেকে ঘিরে ধরলে আমার ছোট ভাইয়ের পায়ে গুলি বিদ্ধ হয়। এ সময় আমি পাশের ড্রেনে লাফিয়ে না পড়লে আমাকে তারা হত্যা করত। এ ঘটনায় আমার কয়েকজন সমর্থক গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছেন।’

সুলতান মাহমুদ অভিযোগ করে বলেন, ‘নির্বাচনে হেরে যাওয়ার আশঙ্কায় প্রতীক পাওয়ার পর থেকে নৌকার লোকজন ভোট চাইতে দিচ্ছে না। আমি আর ভোট চাইনা স্বজনদের প্রাণ ফেরত চাই।

দুপরে নিহত ই্য়াসিনের মরদেহ কোলাদী গ্রামে পৌঁছলে ইয়াসিন ও সুলতানের সমর্থকরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। আওরঙ্গবাদ এলাকায় আবু সাইদের সমর্থকদের বেশ কয়েকটি বাড়িতেও হামলা চালায় তারা। হোসেনের দোতলা বাড়িতে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষুব্ধরা। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। বিকেলে ইয়াসিনের মরদেহ নিয়ে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে দুই স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা।

পাবনা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রোকনউজজামান ‘ভাড়ারা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। অন্তত ৮-১০ জন গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। কয়েকজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’ হামলায় জড়িত সন্দেহে একটি বিদেশী রিভলবার ও দেশীয় অস্ত্রসহ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।

পাবনা সদর ইউনিয়ন পরিষদের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কায়সার আলম বলেন, বৈধ চেয়ারম্যান প্রার্থী নিহত হওয়ায়, ২০১০ সালের ইউপি নির্বাচনী বিধিমালা অনুসারে ভাড়ারা ইউনিয়নে ঐ পদে নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। আইনশৃংখলা পরিস্থিতি বিবেচনা করে সাধারন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে নির্বাচন করা হবে কিনা সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!