বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৪৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
আব্দুল্লাহ-গালিব সৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের খেলায় পাবনা ইগলস জয়ী পাবনায় আদালত চত্বর থেকে সাক্ষী অপহরণ, বাধা দেয়ায় লাঞ্ছিত ৩ আইনজীবী চলনবিলে শীত উপেক্ষা করে কৃষকরা বোরো রোপণে ব্যস্ত ঈশ্বরদীতে শিশু হত্যা মামলায় এক আসামির যাবজ্জীবন চলনবিলাঞ্চলে শীতে ছিন্নমূল মানুষের দুর্ভোগ চাটমোহরে ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে দুধ ব্যবসায়ীর মৃত্যু জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে নির্বাচনী সংঘাতে এলাকাছাড়া পরিবারের সংবাদ সম্মেলন স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা গ্রহণের দাবিতে পাবনায় শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন পাবনায় পদ্মা নদীর বুকে সেই রাস্তা অপসারণ করলো প্রশাসন রূপপুর প্রকল্পে থামছে না চুরি, এবার ক্যাবল চুরি

পাবনায় রেকর্ড, একদিনে সর্বোচ্চ ১৯২ জনের করোনা সনাক্ত, উপসর্গে মৃত্যু ১০

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১
Pabnamail24

পাবনায় আবারো রেকর্ড ভেঙেছে করোনা সনাক্তের সংখ্যা। গত দুবছরের মধ্যে বুধবার সর্বোচ্চ ১৭৭ জন সনাক্তের পরদিনই ভেঙেছে সংক্রমণের রেকর্ড। একদিন পরই বৃহঃস্পতিবার জেলায় করোনা সনাক্ত হয়েছে ১৯২ জনের শরীরে। করোনা উপসর্গে গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় শিক্ষক, মুক্তিযোদ্ধা, চিকিৎসকসহ কমপক্ষে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে একজন গত রাতে জেনারেল হাসপাতালে মারা যান। ঈশ^রদীতে ২ জন, সদর উপজেলায় ৪ জন, সাঁথিয়ায় ২ জন এবং বেড়া উপজেলায় ২ জনের উপসর্গে মৃত্যুর কথা স্থানীয়রা জানালেও, মৃত্যুর সঠিক পরিসংখ্যান জানাতে পারেনি স্বাস্থ্যবিভাগ।

পাবনার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. কেএম আবু জাফর জানান, জেলায় ১২১০ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন ১৯২ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত এটিই পাবনায় সর্বোচ্চ সংক্রমণের রেকর্ড।

তিনি জানান, করোনা সংক্রমণ প্রত্যন্ত গ্রাম পর্যায়ে ছড়িয়ে পড়ায় এবং জনসাধারণ স্বাস্থ্যবিধি মানায় পাবনাতেও করোনা সংক্রমণ বেড়ে গিয়েছে। সচেতন না হলে সংক্রমণ ও মৃত্যু দুই বাড়বে। আক্রান্তের একটি বড় অংশ করোনা পরীক্ষা না করা এবং হাসপাতালের বাইরে মারা যাওয়ায় সঠিক পরিসংখ্যান জানা সম্ভব হচ্ছে না।

আইন শৃংখলা বাহিনীর তৎপরতার মধ্য দিয়ে পাবনায় শুরু হয়েছে প্রথম দিনের কঠোর লকডাউন। প্রধান সড়ক গুলোতে জনসমাগম কম হলেও, খুলেছে অলিগলির দোকানপাট, চায়ের স্টল। পৌর শহরের বাইরে চলাচল করছে ইজিবাইক ও সিএনজি অটোরিক্সার মত যন্ত্র চালিত বাহনও।

সরেজমিনে, পাবনার পৌর এলাকার দক্ষিণ আটুয়া, কাচারীপাড়া, মন্ডলপাড়া, বাবলাতলা, আরিফপুর ও বাস টার্মিনাল এলাকা ঘুরে দেখা যায় সকালের গুড়ি গুড়ি বৃৃষ্টির মাঝেই খুলেছে পাড়া মহল্লার দোকানপাট। চায়ের দোকানগুলিতে ভীড় করে আড্ডা দিচ্ছেন নানা বয়সের মানুষ। অনেকেই বের হয়েছেন আইনশৃংখলা বাহিনী কতটা কঠোর হয় তা দেখতে।

শহরের লাইব্রেরী বাজারে গিয়ে দেখা যায়, কাঁচা সবজির বাজার বসানো হয়েছে পাশ^বর্তী কৃষ্ণপুর বালিকা বিদ্যালয়ের খোলা মাঠে। ক্রেতা সমাগম কম, তবে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথ মানা হচ্ছে না । ক্রেতা বিক্রেতার অনেকের মুখেই নেই মাস্ক। একই চিত্র শহরের বড় বাজার, মাসুম বাজারেও। খাদ্য ও নিত্যপণ্যের দোকান ছাড়াও নিউ মার্কেট, প্রেসক্লাব গলি , দইবাজার, বড় বাজার এলাকার দোকানপাট খুলেছেন ব্যবসায়ীরা। আইনশৃংখলা বাহিনী দেখলে সাটার বন্ধ করে ভিতরে অবস্থান নিচ্ছেন তারা, চলে গেলে পাল্লা অর্ধেক খুলে বেচাকেনা করছেন দোকানীরা।

এদিকে, সকাল থেকেই বৃষ্টি উপেক্ষা করে শহরের বিভিন্ন মোড়ে চেকপোস্ট বসিয়ে চলাচল নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছেন আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা। বাইরে আসা লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন তারা। তবে, বাস টার্মিনাল ও হাজিরহাট এলাকায় সিএনজি অটোরিক্সা, ইজিবাইক চলাচল করতে দেখা গেছে।

মনসুরাবাদ এলাকার বাসিন্দা রাকিবুল হাসান জানান, জরুরী কিছু ওষুধ কিন্ত বাইরে এসেছিলাম। আতঙ্কে ছিলাম হয়তো বাধার মুখে পড়ব। কিন্তু কোথাও বাধাতো দূরের কথা দেখে মনে হচ্ছে সব যেন স্বাভাবিক।

তিনি আরো বলেন, গ্রাম পর্যায়ে যেভাবে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে তাতে আইনশৃংখলা বাহিনী কঠোর না হলে লকডাউন বাস্তবায়ন হবে না, ভয়াবহ পরিণতি হবে।

সকাল থেকে লকডাউনে সরকারী নির্দেশনা বাস্তবায়নে জেলার বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছেন পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান। এ সময় তিনি অযৌক্তিক কারণে বের হওয়া এবং ব্যবসায়ীদের সতর্ক করেন। এ সময় পুলিশ সুপার বলেন, জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বের হলে পুলিশ কঠোর ব্যবস্থা নেবে। আমরা সতর্ক করেছি, এরপরও আইন অমান্য করলে গ্রেফতার করা হবে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!