সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৩৫ অপরাহ্ন

সামান্য বৃষ্টিতেই পাবনা শহরে জলাবদ্ধতা, দুর্ভোগে পৌরবাসী

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০
Pabnamail24
শহরের আতাইকুলা সড়কে প্রায় হাটুপানিতে চলাচল করছেন লোকজন।

প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা হলেও সামান্য বৃষ্টিতেই তলিয়ে যায় পাবনা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক। ভেঙে পড়েছে ড্রেনেজ ব্যবস্থা। জলাবদ্ধতা দূরীকরণে সরকারী কোন বরাদ্দ নেই উল্লেখ করেন পৌর কর্তৃপক্ষ। আর দুর্ভোগ পিছু ছাড়ছে না পৌরবাসীর।

গত দুইদিনের বর্ষণে পাবনা শহরের নিউমার্কেট, পাবনা কলেজ গলি, আতাইকুলা সড়ক, শিবরামপুর, কালাচাদপাড়া, দিলালপুর, কফিল উদ্দিন পাড়া, শান্তিনগর, বেলতলা সড়ক, বড় বাজার, দই বাজার মোড় এবং শালগাড়িয়া, জুগিপাড়াসহ ১০টি ওয়ার্ডের অধিকাংশ এলাকায় জলাবদ্ধতার কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ।

এদিকে জলাবদ্ধতার ফলে দেখা দিয়েছে পানিবাহিত নানা রোগ। গেল কয়েক বছর ধরে সামান্য বৃষ্টিতেই এমন জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হলেও পৌর কর্তৃপক্ষের এ ব্যাপারে কোন মাথা ব্যাথা নেই বলে অভিযোগ পৌরবাসীর।

পাবনা পৌর এলাকার ৯ নং ওয়ার্ডের উত্তর শালগাড়িয়া এলাকার বাসিন্দা মিলন হোসেন বলেন, ‘এই এলাকাতে নেই কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা, ফলে সামান্য বৃষ্টিতেই তলিয়ে যায় এলাকার রাস্তা, বাড়িতে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। এলাকার লোকজন একাধিকবার পৌর মেয়রের কাছে গেলেও এর কোন সমাধান হয়নি।

Pabnamail24

পৌর এলাকার একাধিক বাসিন্দার অভিযোগ, পৌরসভার বিভিন্ন পাড়া মহল্লার পানি নিষ্কাশনের ড্রেনগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণেই এমনটি হয়েছে। এগুলোর পানি শহরের একমাত্র নদী ইছামতীতে গিয়ে পড়ে। কিন্তু নদী দখল আর ময়লা আবর্জনা ফেলার কারণে নালার মুখগুলো বন্ধ হয়ে গেছে। মূলত শহরের পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা ভাল না হওয়ার কারণেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে।

এ ব্যাপারে শহরের নিউমার্কেট এলাকার ব্যবসায়ী সাজিদ সুজন বলেন, ‘বর্ষার মৌসুম এলেই আমাদের চরম সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। সামান্য বৃষ্টিতেই নিউ পূবের রাস্তাটি জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হওয়ায় ক্রেতারা আসে না। ফলে আমাদের বেচা কেনাও কম হয়।’

নিউ মার্কেট কসমেটিক ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক আনন্দ সরকার বলেন,  ‘মার্কেটের সামনের রাস্তায় হাঁটু পানি থাকলে আমরা ক্রেতা পাব কোথায়। আমাদের কথা কেউ ভাবছেন না।’ করোনাকালের জন্যে এমনিতেই গেল ঈদেও ভাল ব্যবসা হয়নি,  তারপর এই জলাবদ্ধতা বলে দাবী করেন তিনি।

শিবরামপুর মহল্লার ব্যবসায়ী আমিনুল হক বলেন, ‘একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তা-ঘাট ডুবে যায়। আমরা আসলে শহরে না গ্রামে বাস করি ঠিক বুঝতে পারি না। এর চাইতে গ্রামই অনেক ভাল।’

পাবনা পৌরসভার উদ্ধতন জৈনক কর্মকর্তা জলাবদ্ধতার কথা স্বীকার করে বলেন, ‘এখানে আমাদের কি করণীয় থাকতে পারে। একদিকে সরকারী কোন বরাদ্দ নেই। অপরদিকে সারা দেশের ন্যায় পাবনায়ও ব্যাপক বৃষ্টি হওয়ার কারণেই এমনটি হয়েছে।

আরো পড়ুন :পাবনার হাসপাতাল গুলোতে ওষুধ-সরঞ্জামাদী সরবরাহের জন্য ঠিকাদারদের অপতৎপরতা

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!