বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ১২:১৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
আব্দুল্লাহ-গালিব সৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের খেলায় পাবনা ইগলস জয়ী পাবনায় আদালত চত্বর থেকে সাক্ষী অপহরণ, বাধা দেয়ায় লাঞ্ছিত ৩ আইনজীবী চলনবিলে শীত উপেক্ষা করে কৃষকরা বোরো রোপণে ব্যস্ত ঈশ্বরদীতে শিশু হত্যা মামলায় এক আসামির যাবজ্জীবন চলনবিলাঞ্চলে শীতে ছিন্নমূল মানুষের দুর্ভোগ চাটমোহরে ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে দুধ ব্যবসায়ীর মৃত্যু জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে নির্বাচনী সংঘাতে এলাকাছাড়া পরিবারের সংবাদ সম্মেলন স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা গ্রহণের দাবিতে পাবনায় শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন পাবনায় পদ্মা নদীর বুকে সেই রাস্তা অপসারণ করলো প্রশাসন রূপপুর প্রকল্পে থামছে না চুরি, এবার ক্যাবল চুরি

বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর মোঃ রইচ উদ্দিন সরকারের ইন্তেকাল

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত সোমবার, ১৯ জুলাই, ২০২১
Pabnamail24

বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর মোঃ রইচ উদ্দিন সরকার ওরফে রইচ প্রফেসর সরকার ১৮ জুলাই রবিবার বার্ধক্য জনিত কারনে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে সকাল ৮.৪৫ মিনিটে মৃত্যুবরণ করেন। ইন্না-লিল্লাহ ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ছিয়াশি বছর। তার জানাজা চাটমোহরে বিকেল ৫.৩০ টায় অনুষ্ঠিত হয়। পরে তাকে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।

বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর মোঃ রইচ উদ্দিন সরকার ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। তিনি নদীয়ার বিধানচন্দ্র হাই স্কুলের কেচুয়াডাঙ্গা ক্যাম্প ও পশ্চিম দিনাজপুরের কুরমাইল ক্যাম্পে ক্যাম্প সংগঠক হিসেবে কাজ করেছেন। এবং তিনি বিদেশী সাংবাদিকদের সাথে দোভাষী হিসেবে কাজ করতেন। এছাড়াও লতিফ মির্জার পলাশ ডাঙ্গা বাহিনীর সাংবাদিক হিসেবে কাজ করতেন।

অর্থাৎ এই বাহিনীর কার্যকলাপ সম্পর্কে ভারতে এবং বিদেশি সাংবাদিকদের অবগত করতেন এবং পরবর্তীতে সেই সংবাদ আকাশবাণী বেতারে প্রচারিত হতো।

তাঁর অনুপ্রেরণায় তৎকালীন সময়ে অসংখ্য তরুণ এবং তার নিজ ছাত্রগন মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। যাদেরকে তিনি নিজ দ্বায়িত্বে প্রশিক্ষণের জন্য ভারতে নিয়ে গিয়েছেন।

একাত্তর সালের আগস্টের মাঝামাঝি সময়ে তিনি নিজ গ্রামে পরিবারের সাথে দেখা করতে এলে স্থানীয় রাজাকার বাহিনী পাকিস্তানি হানাদারদের জানিয়ে দেয়। তবে ঐ সময়ে অল্পের জন্য পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাত থেকে বেঁচে যান। এবং কোনো রকমে পানি সাঁতরে ধানের ক্ষেতে গিয়ে আত্মরক্ষা করেন। অতঃপর গোপনে আবারও ভারতে চলে যান। সাথে প্রশিক্ষনের জন্য নিয়ে যান আরও একদল তরুন মুক্তিযোদ্ধা।

তিনি চাটমোহর ডিগ্রি কলেজের প্রতিষ্ঠান কাল (১৯৭০সাল) থেকে শিক্ষকতা করেন।

প্রফেসর রইচ উদ্দিন সরকারের স্ত্রীসহ তিন ছেলে এবং দুই মেয়ে। তার বড় ছেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে ফার্স্ট ক্লাস ফার্স্ট হয় এবং বিসিএস পরীক্ষায় কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেন। বর্তমানে ইরানের রাষ্ট্রদূত হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার বড় মেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি বিভাগ থেকে কৃতিত্বের সাথে পাস করে পাবনা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক হিসেবে আছেন।

এছাড়া অন্যান্য সন্তানেরাও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সরকারি চাকরিজীবি। এই গুণী সমাজসেবক শিক্ষাবিদ মরহুমের পরিবারের সবাইকে আল্লাহ ধৈর্যধারণ করার তৌফিক দিন।
তাার বিদেহী আত্মার রুহের মাগফেরাত কামনা করেছেন নাতনী জান্নাতুল ফেরদৌস।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!