রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪০ পূর্বাহ্ন

পাবনা-৪ শূন্য আসনে আগ্রহী প্রাথীরা কোথায়, প্রশ্ন ভোটারদের, ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ভোট

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত শুক্রবার, ১০ জুলাই, ২০২০
Pabnamail24

পাবনা-৪ ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া সংসদীয় আসনটি শুণ্য হওয়ার সাথে সাথেই প্রায় দেড় ডজন লোক এমপি হতে এলাকায় বিভিন্ন পেষ্টার, বিলবোডসহ প্যানা লাগালেও এই করোনা ভাইরাসজনিত দৈব-দুর্বিপাকে কারোর দেখা পায়নি ভোটাররা।

সম্প্রতি পাবনা-৪ ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া সসদীয় এলাকার বিভিন্ন এলাকায় পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম’র কয়েকজন প্রতিবেদক ঘুরে এমন তথ্য তুলে আনেন। ভোটারদের অভিযোগ করোনা ভাইরাসের কারনে সারা দেশ্যের ন্যায় পাবনায়ও কড়াকড়ি আরোপ করলে হাতে গোনা দুয়েকজন লোক এসে ত্রান সহায়তা দিলেও প্রায় অধিকাশ লোকজনকেই দেখা মেলেনি। আবার যে দুয়েকজন এসেছেন তাদের একান্তই নিজেদের লোক ছাড়া সাধারণ লোকজন কখনোই কোন সুযোগ সুবিধা পায়নি বলেও অভিযোগ ভোটারদের।

আসনটি শুণ্য হওয়ার সাথে সাথেই প্রায় দেড় ডজন লোক এমপি হতে এলাকায় বিভিন্ন পেষ্টার, বিলবোডসহ প্যানা লাগালেও এই করোনা মহামারীতে কারোর দেখা পায়নি ভোটাররা।

দুই একজন বাদে যারা এসেছেন তারা শুধুমাত্র লোক দেখানোর জন্যে। ত্রান দেওয়ার নামে লোক দেখিয়ে ছবি তুলে ফেসবুকে আপ করা ছাড়া সত্যিকারের জনসেবার মন নিয়ে কেউ আসেনি বলে সলিমপুরের জৈনক শিক্ষক অভিযোগ করেন। তবে দুই একজন সব সময় এই করোনাকালীন সময়ে জনগনের পাশে ছিলেন বলেও দাবী করেছেন।

এই নিবাচনী আসনের একদম শেষের এলাকা লক্ষিপুরের কয়েকজন শিক্ষকের সাথে আলাপকালে তারা অভিযোগ করেন, ভোটের সময় দুইএক জন আসেন। আবার এখন যে ভোট হয়, তাতে আসারও দরকার পরে না। আমাদের সুখ দু:খের খোজ কে নিবে। ত্রান দেওয়া তো দূরে থাক। যারা আগ্রহ প্রকাশ করেছেন এমপি হওয়ার জণ্যে তারা পুরাই বসন্তের কোকিল। সময় শেষ তারাও উধাও। তাই এসব বসন্তের কোকিলদের কথা বাদ দেন। অন্য কথা বলেন ভাই বলেও আফসোসের কথা তুলে ধরেন ভোটাররা।

সম্প্রতি বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয় হতে গত ১২ এপ্রিল জারিকৃত প্রজ্ঞাপনে ও একই তারিখে বাংলাদেশ গেজেটের অতিরিক্ত সংখ্যায় প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি মোতাবেক ২ এপ্রিল ২০২০ তারিখে পাবনা-৪ আসনটি শূন্য হয়েছে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১২৩-এর দফা (৮) অনুযায়ী উক্ত শূন্য পদ পূরণ করার জন্য ৩০ জুন ২০২০ তারিখের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিধান রয়েছে।

‘গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১২৩-এর দফা (৪)-এর শর্তানুসারে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের মতে, দেশে করোনা ভাইরাসজনিত দৈব-দুর্বিপাকের কারণে এই দফার নির্ধারিত মেয়াদ, অর্থাৎ সংসদীয় আসন শূন্য হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে উল্লিখিত শূন্য আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব হবে না।’

এ অবস্থায়, পাবনা-৪ শূন্য আসনের নির্বাচন নির্ধারিত মেয়াদের মধ্যে সম্পন্ন করা সম্ভব না হওয়ায় তা পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে। ৩০ জুন থেকে পরবর্তী নব্বই দিন যোগ করলে সময়সীমা দাঁড়ায় ২৮ সেপ্টেম্বর। নির্বাচনের সময়সূচি পরবর্তী সময়ে ঘোষণা করা হবে বলেও প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়। তবে যেকোন সময় জারী করা হতে পারে পাবনা-৪ আসনের নিবাচনী তফসীল।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!