শনিবার, ২১ মে ২০২২, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় সুজানগরে ছাত্রীকে পিটিয়ে জখম, সহপাঠিদের প্রতিবাদ সুজানগরে সরকারি কালভার্ট ভেঙে নির্মাণ সামগ্রী লুট, তদন্ত কমিটি এমপি পুত্রের স্লিপ অব টাং! হাসপাতোলে অনিয়মের প্রতিবাদ করায় রোগীকে হুমকির অভিযোগ পামেক ছাত্রলীগ সম্পাদকের বিরুদ্ধে জনশুমারি, পাবনায় আগামী ১৫ থেকে ২১ জুন অনুষ্ঠিত হবে রাধানগর অবৈধ ভাবে ভোজ্য তেল মজুদ, জরিমানা আদায় বেড়া-সাঁথিযায় আধা পাকা ধান নিয়ে কৃষকের যুদ্ধ,পানিতে নষ্ট হচ্ছে পাট বেড়ার চরে গো-খামারে ভাগ্যবদল রেলমন্ত্রীর আত্মীয় কান্ডে তদন্তে টিটিই শফিকুল নির্দোষ প্রমাণিত সাঁথিয়ায় মৃত গরুর মাংশ বিক্রয় করায় কসাইকে ১বছরের কারাদন্ড

ফুল দেওয়া নিয়ে দ্বন্দ্বে জড়ালেন মেয়র-ইউএনও

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত সোমবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
Pabnamail24

মহান একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে দ্বন্দ্বে জড়ালেন পাবনার ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)। কার নেতৃত্বে প্রথম শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে এই নিয়ে দ্বন্দ্বে জড়ান তাঁরা।

একুশের প্রথম প্রহর ২১ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা ১ মিনিটে ঈশ্বরদী বাস টার্মিনালের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পৌর মেয়র ইসাহক মালিথা ও ইউএনও পিএম ইমরুল কায়েসের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নায়েব আলী বিশ্বাস, ভাইস-চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম খান, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান আতিয়া ফেরদৌস কাকলিসহ পরিষদের কর্মকর্তা ও কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ১২টার আগেই পৌরসভা নিয়ন্ত্রিত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের জন্য পৌর কর্তৃপক্ষ, উপজেলা প্রশাসন ও পরিষদ, পুলিশ বিভাগ, ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান মিনারের পাদদেশে সমাবেত হয়। ১২টা ১ মিনিটে পৌর মেয়রের নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণের জন্য ঘোষণা দেওয়া হলে আপত্তি জানান উপজেলা নির্বাহী অফিসার। ক্ষোভে তারা পুষ্পস্তবক অর্পণ করা থেকে বিরত থাকেন। এরপর অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের অর্পণ শেষ হলে তারা পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

উপজেলা প্রশাসনের দাবি, রাষ্ট্রের পক্ষে প্রথমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে ফুল দেওয়া হবে। আর পৌরসভা কর্তৃপক্ষের দাবি, ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সি অনুযায়ী প্রথম শ্রেণিভুক্ত পৌরসভার মেয়রের অবস্থান ওপরে থাকায় তার নেতৃত্বেই পুষ্পস্তবক আগে অর্পণ করা হবে।

মেয়র ইসাহক আলী মালিথা বলেন, ২০২০ সালের ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সি অনুযায়ী প্রথম শ্রেণিভুক্ত পৌর মেয়রের অবস্থান ২৫ নম্বরের প্রথমে। এরপর উপজেলা চেয়ারম্যান। এখানে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কোনো অবস্থান নেই।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পিএম ইমরুল কায়েস বলেন, রাষ্ট্রপতি কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত বিধায় আমরা রাষ্ট্রের বা রাষ্ট্রপতির প্রতিনিধি। উপজেলা পর্যায়ে রাষ্ট্রের প্রতিনিধি হিসেবে সব দিবসের সভাপতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার। ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সি শুধুমাত্র রাষ্ট্রীয় প্রোগ্রামে আসন বিন্যাস বা বসার ক্ষেত্রে। যুগ্ম সচিব বা উপসচিব পদমর্যাদাসম্পন্ন হলেই কেউ ফুল নিয়ে সামনে যাবে। অন্য কোথায়ও এটা প্রযোজ্য নয়। এ বিষয়ে কিছু দিন আগেও আমাদের কাছে চিঠি এসেছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!