বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:০৫ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
পাবিপ্রবিতে শহিদ মিনারে ফুল দিতে বাধা, দু’পক্ষের হাতাহাতি ভাষা আন্দোলনের চেতনাকে ধারণ করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে রেলে সস্তায় পরিবহণের সুযোগ দেয়া হবে-পাবনায় রেলমন্ত্রী পাস্ট ডিরেক্ট রিক্রুটেড অফিসার্স এসোসিয়েশনের আত্মপ্রকাশ সনি বিশ্বাস এফবিসিসিআই‘র স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান নির্বাচিত পাবিপ্রবিতে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস পালিত, ডরমিটরি উদ্বোধন চাটমোহরে প্রতিপক্ষের মারধরে এক ব্যাক্তি নিহত, বাবা-ছেলে আটক স্কয়ারের ফ্যামিলী স্পোর্টস ডে পালিত প্রবাসীর স্ত্রী ও শিশু সন্তানকে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা চাটমোহরে প্রবাসীর স্ত্রী ও শিশু সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা

ঈশ্বরদীতে বৃদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৯ আগস্ট, ২০২৩

পাবনার ঈশ্বরদীতে ময়না খাতুন (৫০) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) ভোরে তার মৃত্যু হয়। এর আগে সোমবার (২৮ আগস্ট) পৌর শহরের মশুরিয়াপাড়া কামারপাড়া এলাকায় এই মারপিটের ঘটনা ঘটে। ময়না খাতুন ওই এলাকার রেজাউল করিমের স্ত্রী।

ময়না খাতুনের ছেলে মমিন হোসেন বলেন, সোমবার সন্ধ্যায় প্রতিবেশী রনি হোসেনের স্ত্রী শিলা খাতুনের সঙ্গে টাকা লেনদেন নিয়ে আমার বোন নিশির বাগবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে রনি ও শিলা আমার বোনকে মারধর করেন। আমি আমার ছোট ভাই রিপন হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তারা আমাদেরও মারধর করেন। পরে আমরা ভয়ে এলাকার বাইরে চলে যাই। রাত সাড়ে ৮টার দিকে রনি ও শিলার পক্ষ নিয়ে একই এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন আমার মাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।


এরই এক পর্যায়ে জাহাঙ্গীরের সঙ্গে থাকা ইমরান, আলমগীর, সুজন, আসিফ, আকাশ লোহার পাইপ ও কাঠের বাটাম দিয়ে আমার মাকে বেধড়ক মারধর করে। খবর পেয়ে মাকে উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করি। রাত ১২টার দিকে অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। পরে অ্যাম্বুলেন্স যোগে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে বানেশ্বর এলাকায় মা মারা যান।

নিহতের আরেক ছেলে রিপন হোসেন বলেন, আমার মায়ের হত্যার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছি। আমি আমার মায়ের হত্যাকারীদের দৃৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।
ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অরবিন্দ সরকার অভিযোগ পাওয়অর বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, তারা অভিযোগ দিয়েছেন, আমরা খোজ খবর নিয়ে মামলা হিসেবে নথিভ’ক্ত করবো। মরদেহ সুরতহাল করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়ে দিয়েছি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..