মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ১২:১১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সুনির্দিষ্ট নীতিমালাসহ ৫ দফা দাবীতে পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন ফারিয়া’র ঠিকাদার আওয়ামীলীগ নেতার হাতে এবার লাঞ্ছিত হলেন হিসাবরক্ষন অফিস সুপার দরিদ্র মানুষকে আইনগত সহায়তা দিতে সরকার আন্তরিক, সদিচ্ছার অভাবে মানুষ সুফল বঞ্চিত হচ্ছে- ভারপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ বাস মিনিবাস ও কোচ মালিক সমিতির আহ্বায়ক হলেন কামিল হোসেন সিগারেট ও বিড়ির দ্বৈতনীতি পরিহার করে শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির আহব্বান সুজানগরে শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে এসে জামাই নিহত পাবনায় ড্রেজার মেশিনে অবৈধ ভাবে বালু উত্তেলন, ভাঙ্গছে ফসলী জমি আটঘরিয়ার ইউপি চেয়ারম্যান সাময়িক বরখাস্ত শহীদ শেখ রাসেল’র ৫৭তম জন্মদিন উদযাপন ভোক্তা অধিকার’র সেই এডি’র হাত থেকে নিস্তার চান ব্যবসায়ীরা

ছেলে হত্যার কথা স্বীকার মা-বাবার, পাবনা আদালতে

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত বুধবার, ৭ অক্টোবর, ২০২০
Pabnamail24

পাবনার আটঘরিয়ায় কীটনাশক মেশানো লেবুর শরবত খাইয়ে মানসিক রোগী ছেলেকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন বাবা ও সৎ মা। অভিযুক্ত বাবুল সরকার ও তার ২য় স্ত্রী মোমেনা খাতুনকে রোববার পাবনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুকান্ত সাহার আদালতে হাজির করলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন তারা। পরে বিচারক দু’জনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। হত্যাকাণ্ডটি ঘটে উপজেলার গোপালপুর তাঁতীপাড়ায়। প্রথমে আত্মহত্যা বলে চালানোর অপচেষ্টা করলেও পুলিশের জেরায় বেরিয়ে আসে মূল ঘটনা। হত্যার অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। নিহত নাইস সরকারের (২২) মামা আবদুল মজিদ থানায় হত্যা মামলা করেন।

পুলিশ জানায়, ২০১৬ সালে নাইসের মা চায়না খাতুনের অনুমতি না নিয়ে বাবুল সরকার মোমেনা খাতুনকে বিয়ে করেন। ১ম স্ত্রীকে নানাভাবে অত্যাচার শুরু করলে বিষয়টি স্বাভাবিক ভাবে নিতে পারেনি নাইস। এরপর থেকে তার মানসিক রোগ দেখা দেয়। এদিকে নির্যাতন সইতে না পেরে বাবার বাড়ি চলে যান চায়না খাতুন।

বৃহস্পতিবার সকালে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাবাকে মারতে উদ্যত হয় নাইস। এ সময় তাকে বেধড়ক পেটান তার বাবা। এরপর রাতে বাবুল-মোমেনা পূর্বপরিকল্পনা মতো শরবত খেতে দেয় তাকে। কিছুক্ষণের মধ্যেই মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়ে নাইস। ভোর হওয়ার পর বাবুল-মোমেনা সবাইকে বলেন, নাইস আত্মহত্যা করেছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে বাবুল ও মোমেনার অসংলগ্ন কথাবার্তায় সন্দেহ হয় পুলিশের। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয় ওই দম্পতিকে। পুলিশের টানা জিজ্ঞাসাবাদে অবশেষে হত্যার কথা স্বীকার করেন তারা।

আটঘরিয়া থানার ওসি আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম বলেন, মূলত মারতে উদ্যত হওয়া এবং পূর্বের রাগ থেকেই নাইসকে হত্যার সিদ্ধান্ত নেয় বাবুল-মোমেনা দম্পতি।

 

 

 

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!