বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:৩৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করলেন প্রক্টর মো. কামাল হোসেন পাবনা হাসপাতালে দালালের বিরুদ্ধে নার্সকে মারধরের অভিযোগে কর্মবিরতি বাউয়েট আইন অনুষদের তিন সদস্য বিশিষ্ট টিমের দিল্লি ল’ কনফারেন্সে অংশগ্রহন। মুক্তিতে বাধা নেই সাবেক এমপি সেলিম রেজা হাবিবের দুলাই আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসীন্দাদের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের কম্বল বিতরণ কাশীনাথপুরে ক্যাডেট কলেজের নামে প্রতারণা! মালঞ্চি ইউনিয়ন, জমির ভুয়া মালিকানায় রাস্তা নির্মাণে বাধা দেয়ার অভিযোগ বেড়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে আসামি ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ ধর্ষণ মামলায় পাবনার সাবেক এমপি আরজুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগানের সাথে মানবাধিকার কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য সেলিম রেজা

প্রধানমন্ত্রীর নামে বেড়া পৌরমেয়রের অবৈধ লটারি বানিজ্য!

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত মঙ্গলবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২২
Pabnamail24

পাবনার বেড়ায় প্রধানমন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে অবৈধ লটারি বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে বেড়া পৌর মেয়র আসিফ শামস রঞ্জনের বিরুদ্ধে। স্থানীয়রা জানান, বেড়া পৌর ক্রীড়া উন্নয়ন সংস্থার নামের ভুঁইফোড় একটি সংগঠনের ব্যানারে প্রধানমন্ত্রীর ৭৬ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে মেয়র গোল্ডকাপ আন্তঃজেলা ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হয়।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া এ ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজনের পেছনে মাদকের বিরুদ্ধে আন্দোলনে তরুণ সমাজকে যুক্ত করার মহৎ উদ্দেশ্য প্রচার করা হয়। তবে, গত কয়েকদিন ধরে টুর্নামেন্টের আড়ালে অবৈধ লটারী বাণিজ্য চালাচ্ছেন আয়োজকরা। এ ধরণের লটারি পরিচালনায় প্রশাসনের কোন অনুমোদন নেই বলেও নিশ্চিত করেছেন বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সবুর আলী।

সরেজমিনে সোমবার বেড়া সিএনবি মোড় এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, চটকদার সব বিজ্ঞাপন প্রচার করে এবং মোটরসাইকেল, বাইসাইকেল, টিভি, ফ্রিজসহ বিভিন্ন রকম পুরস্কারের প্রলোভন দেখিয়ে অটো ভ্যানে চলছে লটারির টিকেট বিক্রি। ভ্যানের চারিদিকে লাগানো হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে ফুটবল টুর্নামেন্টের পোস্টার।

মাইকে এসব লোভনীয় বিজ্ঞাপন শুনে লটারি কিনতে পিকআপ, ব্যাটারিচালিত ভ্যান, ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকে থাকা লটারি বিক্রেতাদের কাছে হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন বিভিন্ন বয়সী নারী পুরুষরা। কেউ কেউ ২০ টাকা মূল্যের এই লটারি ৪ থেকে ৫ টিও কিনছেন। কোনো কোনো ব্যক্তি আবার ১০টি লটারিও কিনছেন।
স্থানীয়রা জানান, চটকদার এসব বিজ্ঞাপনে প্রলুব্ধ হয়ে মোটরসাইকেল, সাইকেল, টিভি, ফ্রিজসহ বিভিন্ন রকম পুরস্কার পাওয়ার আশায় গ্রামের নিরীহ নারী পুরুষ প্রতিদিনই এই লটারি কিনছেন। এভাবেই র‌্যাফেল ড্র এর নামে প্রতিদিন সাধারণ মানুষের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন মেলার আয়োজক ও র‌্যাফেল সংশ্লিষ্টরা। এতে আর্থিকভাবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে নিম্ন আয়ের মানুষ। কিন্তু এসব অবৈধ কর্মকান্ড প্রকাশ্যে চললেও জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের নিরব ভূমিকা নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন।

ভ্যানচালক মজিদ শেখ নামে এক লটারি ক্রেতা জানান, একটা ফ্রিজের আশায় তিনি প্রতিদিন ১০/১২ টি লটারি কেনেন এতে তার প্রতিদিন ২শ থেকে ২ শ ৪০ টাকা খরচ হয়। যা আয় করছেন তার বেশির ভাগই লটারি কিনতে ফুরিয়ে যাচ্ছে তবুও তিনি প্রতিদিন লটারি কেনেন এবং যত দিন এই লটারি চলবে তিনি ততোদিন লটারি কিনবেন। লটারি কেনা তার কাছে নেশার মতো হয়ে গেছে বলেও তিনি জানান।

টিকেট বিক্রেতা উজ্জল জানান, প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত অর্ধশতাধিক ব্যাটারিচালিত অটোভ্যানে শতাধিক লাটারি বিক্রেতা সমগ্র বেড়া উপজেলাসহ পার্শ¦বর্তী সাঁথিয়া উপজেলা, সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা চষে বেড়াচ্ছে র‌্যাফেল ড্র এর লটারি বিক্রি করতে। প্রতিটি টিকেট ২০ টাকা হিসেবে প্রতিদিন গড়ে ৩০০ থেকে ৪০০ টিকেট বিক্রি হয় এসব অটোভ্যান ও খেলার মাঠে। এ হিসেবে দৈনিক গড়ে চার লাখ টাকার টিকেট বিক্রি হলেও নামমাত্র পুরস্কার দিয়ে এসব টাকা লুটপাট করছেন আয়োজকরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক লটারি বিক্রেতা জানান, বাণিজ্যিক ভাবেই ফটকাবাজি লটারির ব্যবসা করে তাদের কোম্পানি। ফুটবল টুর্নামেন্ট কমিটির বেড়া মেয়র আসিফ শামস রঞ্জনের সাথে একটা চুক্তির মাধ্যমে লটারি খেলা চলছে। র‌্যাফেল ড্র এর লটারি বিক্রি টাকার ভাগ মেলার আয়োজক ও লটারি কোম্পানি ভাগাভাগি করে নেয়। তাদের প্রতিটি ভ্যান বা যানবান থেকে প্রতিদিন ৪ থেকে ৮ হাজার টাকার লটারি বিক্রি হচ্ছে। কেউ কেউ এর চেয়ে অনেক বেশি টাকারও লটারি বিক্রি করেন।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে অবৈধ লটারি বানিজ্য চালানোয় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পাবনা জেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। জেলা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রস্তাবনায় থাকায় নাম প্রকাশ করে বক্তব্য দিতে রাজি না হলেও বিষয়টিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অবমাননার ধৃষ্টতা বলে মন্তব্য করেছেন তারা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক এক সহসভাপতি বলেন, আসিফ শামস রঞ্জন ডেপুটি স্পিকার শামসুল হক টুকু এমপির ছেলে। নানা বিতর্কিত কাজ করেও তারা বার বার পুরস্কৃত হন। তাদের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিলে এলাকায় টিকে থাকাই মুশকিল। তবে, প্রধানমন্ত্রী আমাদের আবেগের জায়গা। তার নামেও যে এরা ব্যবসা করবে তা কখনো কল্পনা করিনি।

এ বিষয়ে কথা বলতে টুর্নামেন্ট আয়োজক বেড়া পৌর মেয়র আসিফ শামস রঞ্জনের মুঠোফোনে একাধিক বার কল করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। মুঠোফোনে ক্ষুদে বার্তা দিয়েও প্রতিউত্তর পাওয়া যায় নি।

তবে, খেলার আড়ালে লটারি পরিচালনায় কোন অনুমোদন দেয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সবুর আলী। তিনি বলেন, প্রবেশ টিকেটের কথা বলে লটারি বিক্রি করা হচ্ছে বলে শুনেছি। এ ধরনের লটারি বিক্রির আইনত সুযোগ নেই। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে পরামর্শ করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!