বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
বাউয়েট আইন অনুষদের তিন সদস্য বিশিষ্ট টিমের দিল্লি ল’ কনফারেন্সে অংশগ্রহন। মুক্তিতে বাধা নেই সাবেক এমপি সেলিম রেজা হাবিবের দুলাই আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসীন্দাদের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের কম্বল বিতরণ কাশীনাথপুরে ক্যাডেট কলেজের নামে প্রতারণা! মালঞ্চি ইউনিয়ন, জমির ভুয়া মালিকানায় রাস্তা নির্মাণে বাধা দেয়ার অভিযোগ বেড়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে আসামি ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ ধর্ষণ মামলায় পাবনার সাবেক এমপি আরজুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগানের সাথে মানবাধিকার কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য সেলিম রেজা পাবনায় চাঁদাবাজি মামলায় সাবেক যুবলীগ নেতা গ্রেফতার, জেল হাজতে প্রেরণ প্রকাশিত হলো স্টুডিও কৃত্তিমের নতুন গান জোছনা

জেলা পরিষদ নির্বাচন, চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের দুই নেতার মনোনয়ন জমা

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত বৃহস্পতিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২
Pabnamail24

জেলা পরিষদ নির্বাচনে পাবনায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের দুই নেতা মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। বৃহঃস্পতিবার জেলা পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও পাবনা জেলা প্রশাসক বিশ^াস রাসেল হোসেন এবং জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন ।
জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের তথ্যমতে, আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৫৪ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য ১১ জন পদে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক উপদেষ্টা, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আ স ম আব্দুর রহিম পাকন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেব মনোনয়ন জমা দিয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন।

সদস্য ও নারী সদস্য পদে মনোনয়ন জমা দেয়া প্রার্থীরা অধিকাংশই আওয়ামীলীগের নেতা কর্মী। সদস্য পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বিজয় ভূষণ রায়, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক হাজী ফারুক হোসেন, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা নজরুল ইসলাম সোহেল প্রমূখ।

মনোনয়নপত্র জমা শেষে শেখ হাসিনার প্রতি ধন্যবাদ জানিয়ে আওয়ামীলীগের প্রার্থী ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বলেন, দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি তারা অবিচল। তাদের আশা আওয়ামীলীগের প্রার্থীকেই ভোটাররা জয়ী করবেন। আর কেউ বিদ্রোহী প্রার্থী হলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী বলেন, বিগত নির্বাচনেও তিনি প্রার্থী হয়েছিলেন। কিন্তু তাকে হারানো হয়েছে। যাকে নির্বাচিত করা হয়েছিল তার মাধ্যমে উন্নয়ন ত্বরান্বিত হয়নি। তিনিও জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

চলতি বছরের আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর, মনোনয়নপত্র যাছাই বাছাই, ১৮ সেপ্টেম্বর বাতিলকৃত মনোনয়নপত্রের আপিল, ১৯ থেকে ২১ সেপ্টেম্বর, আপিল নিষ্পত্তি, ২২ থেকে ২৪ সেপ্টেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৫ সেপ্টেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ হবে ২৬ সেপ্টেম্বর। ১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে ভোটগ্রহণ।

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!