বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:০৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ

প্রতিথযশা রণেশ মৈত্রসহ পাবনার সাংবাদিকদের নিয়ে অপপ্রচারে পাবনা প্রেসক্লাবের গভীর উদ্বেগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত শনিবার, ৪ জুন, ২০২২
Pabnamail24

পাবনা প্রেসক্লাব গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছে যে, পাবনার কতিপয় সমাজ বিরোধী, মাদক ব্যবসায়ী, চিহ্নিত খুনী, চাঁদাবাজ, অশিক্ষিত এবং নানা অপকর্মের হোতা একাধিক ফৈজদারি মামলার আসামী অসাধু ব্যাক্তি সাংবাদিক ও প্রেসক্লাবের নাম ব্যবহার করে নানা প্রচার এবং অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়েছে। এরা এহেন অপকর্ম নেই যা করছেনা। এতে করে মানুষের মধ্যে সাংবাদিকদের সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণার সৃষ্টি হচ্ছে। এ ছাড়া পাবনার সমৃদ্ধ সাংবাদিকতা এবং ৬২ বছরের পাবনা প্রেসক্লাবের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। এদের কর্মকান্ডে এই মান পেশার বিপর্যয় সৃষ্টির আশংকা দেখা দিয়েছে।

একই সাথে আমরা লক্ষ্য করছি যে, একটি মহল স্বপ্রণোদিত হয়ে বা কারো দ্বারা প্ররোচিত হয়ে একটি কুচক্রি মহল দেশের স্বন্মধ্যন্য সাংবাদিক কলামিষ্ট ভাষা সৈনিক মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক রণেশ মৈত্রসহ পাবনা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সদস্য হাবিবুর রহমান স্বপন ও পাবনা প্রেসক্লাবের নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদসহ কয়েকজন সাংবাদিকদের নামে কুৎসা রটনায় মেতে উঠেছে। বাংলাদেশের সংবিধান সংবাদমাধ্যম ও সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনে অধিকার সংরক্ষণ করেছে। এদের কর্মকান্ডে পাবনার ব্যবসায়ী, চাকুরীজীবী, কৃষক-শ্রমিক ও সুশীল সমাজ আতংকগ্রস্থ। সাংবাদিকতার নামে এই শ্রেনীর চিহ্নিত সন্ত্রাসী, খুনী, মাদক ব্যবসায়ী ও সমাজ বিরোধীদের অতি দ্রুত নির্মূল না করলে পাবনায় কর্মরত সৎ, নির্ভিক, মেধাবী ও শিক্ষিত জাতীয় গণমাধ্যম ও স্থানীয় পত্রিকার সম্পাদক তথা সার্বিকভাবে পাবনার মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হবে।

এ ছাড়াও জেলার একটি উপজেলার দায়িত্বশীল একজন সরকারী কর্মকর্তা সাংবাদিকদের নিয়ে বিভিন্ন ধরনের কুৎসা রটাচ্ছেন, যা খুবই উদ্বেগেরও বটে। জনগণের জন্য রাষ্ট্রের কল্যানার্থে সাংবাদিকগণ তাদের দায়িত্ব পালন করেন। আর যারা সাংবাদিকদের নামে বদনাম ছড়াচ্ছেন তাদের সম্পর্কে সরকারের প্রশাসন যন্ত্রকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানাচ্ছি। একই সঙ্গে ঐ সরকারি কর্মকর্তা ও সন্ত্রাসী মাদক ব্যবসায়ী চক্রের এহেন ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত তাদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য যথাযথ কর্তপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

প্রসঙ্গত, ১৯৬১ সালে প্রতিষ্ঠিত পাবনা প্রেসক্লাব পাবনার সাংবাদিকদের একমাত্র প্রাণের সংগঠন। চলতি বছর এই ক্লাব ৬২ বছরে পদার্পন করলো। ঐতিহ্যবাহী পাবনা প্রেসক্লাব জাতীয় প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠার পর জেলা শহরে প্রথম কোন সাংবাদিক সংগঠন। জেলার প্রাচীনতম এই প্রেসক্লাব ৬৬ সালে খাপড়া ওয়ার্ড আন্দোলন, ৬৭ সালে ভুট্টা আন্দোলন, ৬৯ এর গণ আন্দোলন, ৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধের সাথে অতোপ্রোতভাবে জড়িত। এই ক্লাবের সম্মানিত জীবন সদস্য ছিলেন এবং আছেন প্রয়াত ভাষা সৈনিক আব্দুল মতিন, স্কয়ার গ্রুপের চেয়ারম্যান স্যমসন এইচ চৌধুরী, মহান মুক্তিযুদ্ধের দ্বিতীয় সর্বাধিনায়ক এয়ার ভাইস মার্শাল (অব:) একে খন্দকার, দূর্নীতি দমন কমিশনের সাবেক কমিশনার ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা কমিটির সদস্য সাহাবউদ্দিন চুপ্পু, মাছরাঙা টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বীরমুক্তিযোদ্ধা অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু প্রমুখ। এছাড়াও এই ক্লাবের সদস্য ছিলেন, দৈনিক বাংলার ষ্টাফ রিপোর্টার ও প্রেসিডেন্ট পদক প্রাপ্ত সাংবাদিক মীর্জা শামসুল ইসলাম ছাড়াও ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও একুশে পদকপ্রাপ্ত কিংবদন্তি সাংবাদিক কলামিষ্ট রনেশ মৈত্র এখনো আমাদের মাঝে দীপ্তি ছড়াচ্ছেন।

পাবনায় কর্মরত সকল জাতীয় গণমাধ্যমের অধিকাংশ সাংবাদিক পাবনা প্রেসক্লাবের সম্মাণিত সদস্য। পাবনা প্রেসক্লাব বিভিন্ন গণতান্ত্রিক আন্দোলন, শ্রমজীবী মানুষের অধিকার, পাবনার উন্নয়নে বিভিন্ন সময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। পাবনার মানুষের আস্থা ও ভরসাস্থল এই সুপ্রাচীন ঐতিহ্যবাহী পাবনা প্রেসক্লাব। সম্প্রতি রটানো এসব কুৎসা থেকে পাবনাবাসীকে সতর্ক থাকার আহবান করছেন পাবনা প্রেসক্লাব কর্র্তৃপক্ষ।

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!