রবিবার, ২২ মে ২০২২, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
পাবনা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক আ জ ম আব্দুল আওয়ান খান স্মরণসভা বৈশাখী ঝড়ে স্কুলের দ্বিতল ভবনের টিনের ছাদ ক্ষতিগ্রস্থ, ব্যাহত শিক্ষা কার্যক্রম সাঁথিয়ায় ২য় দিনেও ক্লাস বর্জন, বিচারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ আমিনপুর থানা আওয়ামীলীগের প্রথম সভাপতি ইউসুফ আলী খান, সম্পাদক রেজাউল হক বাবু কুঁজো মানুষের চিৎ হয়ে শোয়ার স্বপ্ন-আব্দুর রহমান জাতীয় সরকার প্রস্তাব, কুঁজো মানুষের চিৎ হয়ে শোয়ার স্বপ্ন —- আওয়ামীলীগ সভাপতি মন্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় সুজানগরে ছাত্রীকে পিটিয়ে জখম, সহপাঠিদের প্রতিবাদ সুজানগরে সরকারি কালভার্ট ভেঙে নির্মাণ সামগ্রী লুট, তদন্ত কমিটি এমপি পুত্রের স্লিপ অব টাং! হাসপাতোলে অনিয়মের প্রতিবাদ করায় রোগীকে হুমকির অভিযোগ পামেক ছাত্রলীগ সম্পাদকের বিরুদ্ধে

ভিসিপন্থি পাবিপ্রবি কর্মকর্তারা ২য় দিনের মতো আন্দোলন করেছে

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত রবিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
Pabnamail24

১৭ দফা দাবিতে রেজিষ্টার দপ্তরে তালা দিয়ে রোববার দ্বিতীয়দিনের মতো কর্মসূচী পালন করেছে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিপন্থি কর্মকর্তারা। শনিবার সকাল দশটা থেকে অফিসার্স এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে রেজিষ্টার দপ্তরের গেটে তালা ঝুলিয়ে দেয়া হয়। এর মাধ্যমে রেজিস্টার দপ্তরের কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে বলে জানান আন্দোলনকারীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সোহাগ হোসেন বলেন, করোনাকালীন সময়ে অর্ধেক জনবল নিয়ে অফিস করা, উচ্চতর স্কেল প্রদান, অটো পদোন্নতি, বিশ^বিদ্যালয়ের সকল কমিটিতে কর্মকর্তাদের অন্তর্ভূক্ত করা সহ ১৭ দফা দাবি গত ২৪ জানুয়ারী লিখিতভাবে রেজিষ্টারের মাধ্যমে উপাচার্যকে জানানো হয়। উপাচার্য গত ২৯ জানুয়ারি কর্মকর্তাদের তার বাসভবনে ডেকে দাবি পূরণের আশ^াস দেন এবং পরবর্তী সাত কর্মদিবসের মধ্যে বাস্তবায়নের কথা জানান। উপাচার্য দাবি পূরণ বা বাস্তবায়নের কোনো উদ্যোগ নেননি। তাই বাধ্য হয়ে রেজিষ্টার দপ্তরের প্রধান গেটে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলে জানান আন্দলোনকারীরা।

বিশ^বিদ্যালয়ে কর্মরত একাধিক কর্মকর্তারা জানান, সম্প্রতি একটি মামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি হারুন অর রশিদ ডন বিশ^বিদ্যালয় থেকে সাসপেন্ড হন। সেই বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের জন্যই মূলত এই আন্দোলন করা হচ্ছে।
তবে সাধারণ সম্পাদকের নিকট বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে তিনি এড়িয়ে যান।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্টার (চলতি দায়িত্ব) বিজন কুমার ব্রক্ষ্ম বলেন, কর্মকর্তাদের আন্দোলনের বিষয়টি ভিসি স্যারকে জানানো হয়েছে। তিনি বিষয়টি দেখছেন। আন্দোলনের কারণে রেজিষ্টার দপ্তরের সকল কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।
এ বিষয়ে কথা বলার জন্য বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফসর ড. এম রোস্তম আলীর সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্ঠা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!