রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ১১:০১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
পাবিপ্রবি’র অর্থনীতি বিভাগের যুগপূতি পাবনায় দুইদিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব শুরু পাবনায় পুলিশের বন্ধু বঙ্গবন্ধু গ্যালারীর উদ্বোধন শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদে পাবনায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত এবার জাল দলিলসহ ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করে ৫২ বিঘা জমি দখলের অপচেষ্টা! পাবনা প্রেসক্লাব সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমানের জন্মদিন পালন পাবিপ্রবির কর্মচারী পরিষদের ১১ দফা দাবিতে মানববন্ধন, স্মারকলিপি পেশ রূপপুর এনপিপিঃ দ্বিতীয় ইউনিটের অভ্যন্তরীণ কন্টেইনমেন্টে ডোম স্থাপন সম্পন্ন ভালো কাজের আনন্দ খুবই তৃপ্তির-পাবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন ভাঙ্গুড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু

ট্রেনের টিটিইকে গুলি করার হুমকি, ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি

নিজস্ব প্রতিনিধি, পাবনামেইল টোয়েন্টিফোর ডটকম
  • প্রকাশিত বুধবার, ১ জুন, ২০২২
Pabnamail24

চলন্ত ট্রেনে টিকিট চেকিং নিয়ে বচসা এবং ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষককে (টিটিই) গুলি করে মাথার খুলি উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন এক সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই)। এ ঘটনার প্রকৃত কারণ খুঁজে বের করতে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। এতে সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী (এইএন) শিপন আলীকে আহবায়ক ও পাকশী রেলওয়ে সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আমিন-উল-ইসলাম ও সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা (এটিও) এ কে এম নুরুল আলমকে সদস্য করা হয়। বুধবার দুপুরে পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও) নাসির উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রেলওয়ে বিভাগের একাধিক টিটিই, গার্ডসহ রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুরে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন থেকে চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ছেড়ে যায়। উল্লাপাড়া স্টেশনে পৌঁছার সময় ওই ট্রেনে কর্তব্যরত টিটিই আব্দুল আলীম বিশ্বাস মিঠু বিনা টিকিটের যাত্রীদের জরিমানাসহ টিকিট করিয়ে দিচ্ছিলেন। টিটিই এবং গার্ডের অভিযোগ, এ সময় রেলওয়ে পুলিশের একজন কনস্টেবল টিটিই ও গার্ডকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আপনারা আমাদের এদিকে টিকিট চেকিং করতে কেন এসেছেন?’ এ প্রশ্নে গার্ড ইকবাল মাহমুদ ওই পুলিশ সদস্যকে সংযত হয়ে কথা বলতে বলেন। এ নিয়ে গার্ড ও টিটিইর সঙ্গে বচসার সময় সেখানে এগিয়ে আসেন ট্রেনে ঈশ্বরদী জিআরপি পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক মো. রোবেল মিয়া। ঈশ্বরদী রেলওয়ে থানার একজন এএসআই ও দুই জন কনস্টেবল, টিটিই, গার্ডসহ তাঁরা ঈশ্বরদী-ঢাকা রুটে চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনে স্ব-স্ব দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন।

ভুক্তভোগী টিটিই আব্দুল আলীম মিঠু বলেন, বিনা টিকিটের যাত্রীর থেকে ‘ঞ’ বগিতে ১১ জন যাত্রীর কাছ থেকে ৩ হাজার ১শ টাকা ভাড়াসহ জরিমানা আদায় করা হয়। এ সময় গার্ড সাহেব এসে উপস্থিত হলে তাকেও কথা কাটাকাটি ও গালিগালাজ করে। প্রতিবাদ করা হলে ট্রেনে দায়িত্বরত এএসআই রুবেল আমাকে গুলি করার হুমকি দেন এবং হ্যান্ডকাপ পরিয়ে গ্রেফতারের চেষ্টা করেন। পরে গালিগালাজ শুরু করলে আমিও পাল্টা গালি দেয়। পরে ট্রেনের পরিবেশ যেন নষ্ট না হয়, তাই ঘটনাস্থল ত্যাগ করি। ঈশ্বরদী থেকে বিনা টিকিট এর যাত্রীদের কাছ থেকে ২১ হাজার ৫শ, টাকা রাজস্ব আদায় করা হয়েছে বলে জানান ওই টিটিই।

তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রুবেল মিয়া গুলি করার কথা অস্বীকার করে বলেন, ওই বগিতে আমার সঙ্গে থাকা কনস্টেবল ফারুকের সঙ্গে গার্ড ইকবাল মাহমুদের কথা হয়, আমি পাশে দাঁড়িয়ে ছিলাম। এ সময় ইকবাল কনস্টেবল ফারুককে বলেন ইনি কে? তখন আমি বলি ‘আমাদের গায়ে পোশাক দেখে চিনতে পারছেন না আমি কে?’ এ সময় পাশে থাকা টিটিই আব্দুল আলীম মিঠু বলে ওঠে ‘শালারা টাকা পায় না, এজন্য মাথা খারাপ হয়ে গেছে। এ সময় আমি একটু উচুুঁস্বরে বলে উঠি ‘এই শালা বললি কাকে? একদম হ্যান্ডকাপ পরিয়ে দেব।’ এ সময় ট্রেনের লোকজন বুঝিয়ে বললে বিষয়টা মিটমাট ঠিক হয়ে যায়। এছাড়া আর কোনো ঘটনা ঘটেনি। গুলি করার কথা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

ট্রেন পরিচালক ইকবাল বলেন, আমি ট্রেনের পরিবেশ শান্ত রাখতে আর কোনো কথা না বলে স্থান ত্যাগ করি। পরে বিষয়টি পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক, পাকশী বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) রেলওয়ে জিআরপি থানার ইনচার্জকে বিষয়টি অবগত করে ডিউটি শেষ করি।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোপাল কুমার জানান, ট্রেনের মধ্য রেলওয়ে পুলিশের সঙ্গে সামান্য ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। ডিউটি শেষ করে আসলে বিস্তারিত জানা যাবে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) শাহীদুল ইসলাম জানান, আমাদের টিটিই অত্যন্ত দায়িত্বশীল এবং অত্যন্ত কর্তব্যপরায়ণ। তিনি ওই ট্রেনের ৮ জন বিনাটিকিটের যাত্রীকে জরিমানা করতে গেলে ওই ট্রেনের দায়িত্বরত এএসআই তাকে গুলি করার হুমকি দিয়েছে বলে জানতে পেরেছি। প্রকৃত ঘটনা জানতে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এর আগে রেলমন্ত্রীর ‘আত্মীয় পরিচয়’ দিয়ে বিনা টিকিটে ট্রেনে ভ্রমণ করায় গত ৪ মে রাতে ঈশ্বরদী থেকে ঢাকাগামী আন্ত:নগর ‘সুন্দরবন এক্সপ্রেস’ এর তিন যাত্রীকে জরিমানা করেছিলেন টিটিই শফিকুল ইসলাম। কিন্তু রেলমন্ত্রীর স্ত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে পরদিন তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করে রেল কর্তৃপক্ষ।

বিষয়টি প্রকাশ্যে এলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুরু হয় সমালোচনা। টিআইবি এবং যাত্রী কল্যাণ সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে তীব্র সমালোচনার মুখে শফিকুলের বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়।

শেয়ার করুন

বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!